দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলা সর্ব বৃহৎ কাহারোল হাট সংক্রমনের বড় ঝুকি তৈরী করছে গরুর হাটে। সমাজিক দূরত্ব মানছেনা কেউ, অনেক গরু বিক্রেতা ও ক্রেতারা ঠিকমত মাস্ক ব্যবহার করছেনা।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমন মোকাবিলায় দেশ জুড়ে গত ২৬মার্চ থেকে ৩০ মে পর্যন্ত ৬৬ দিনের সাধারন ছুটির মধ্যে কাহারোল উপজেলা হাট বাজার গুলোতে সামাজিক দূরত্ব রক্ষায় মোটা মোটি তৎপর ছিল উপজেলা প্রশাসন। কিন্তুু ছুটি শেষে কাহারোল গরুর হাট সহ অন্যান্য হাট বাজার গুলোতে সামাজিক দূরত্ব রক্ষায় উপজেলা প্রশাসনের তদারকিও থেকে গেছে। আবার হাট বাজার গুলোতে ক্রেতা ও বিক্রেতারা মাস্ক পড়ার ক্ষেত্রে অনেকটাই উদাসিন।

শনিবার কাহারোল হাট ঘুরে দেখা গেছে গরুর হাটে, সবজি বাজার সহ বিভিন্ন দোকানে দেখা গেছে অনেক বিক্রেতা ও ক্রেতার মুখে মাস্ক নেই অথচ সরকারের নির্দেশনা অনুযাই বাইরে চলাচল করার সময় মাস্কের ব্যবহার বাদ্ধতা মূলক। গরুর হাটে লোকে-লোকারণ্য দুই এক জন বাদে অনেকেরই মুখে মাস্ক দেখা গেল না।

গত ৩০ মে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক ঘোষনায় বলা হয় কোভিড-১৯ সংক্রমনের মধ্যে বাড়ীর বাইরে চলাচলের সময় অবশ্যই মাস্ক পড়তে হবে। মস্ক না পড়ে বাইরে চলাচল করলে সর্বোচ্চ ৬মাস কারাদন্ড বা ১লক্ষ টাকা জরিমানা করা যাবে। গরু ক্রেতা মোঃ আলী বলেন, বাজারে কোন ধরনের সামাজিক দূরত্ব মানা হচ্ছে না।

অনকেই মাস্ক ছাড়া এসেছেন, গরু বিক্রেতাদের মুখেও মাস্ক নেই। এ ব্যাপারে কাহারোল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরুল হাসান জানন, যারা মাস্ক ব্যবহার করছে না তাদের ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। ইতি মধ্যে অভিযান চালিয়ে বেশ কিছু জরিমানা করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য