প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস প্রতিরোধে যুক্তরাজ্যে নতুন একটি ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ (হিউম্যান ট্রায়াল) শুরু হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, লন্ডনের ইমপেরিয়াল কলেজের উদ্ভাবিত ভ্যাকসিনটি বৃহস্পতিবার স্বেচ্ছাসেবীদের শরীরে প্রয়োগ করা হয়েছে।

বিবিসি জানিয়েছে, পশুর শরীরে এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হলে তা নিরাপদ ও শরীরে রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে যথেষ্ট কার্যকরী বলে প্রমাণিত হয়েছে। ভ্যাকসিন প্রথম প্রয়োগ করা হয় স্বেচ্ছাসেবী ক্যাথির শরীরে। ৩৯ বছরের এই নারী একটি আর্থিক প্রতিষ্ঠানে কর্মরত। ভাইরাসের বিরুদ্ধে এই যুদ্ধে সামিল হতে শরীরে ভ্যাকসিন নেন ক্যাথি।

আগামী কয়েক সপ্তাহে অন্তত ৩০০ জনের শরীরে এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হবে।

ভ্যাকসিন তৈরিতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন অধ্যাপক রবিন শ্যাটোক ও তার সহকর্মীরা। অধ্যাপক শ্যাটোক বলেন, আমরা একেবারে শূন্য থেকে যাত্রা করে একটি ভ্যাকসিন আবিষ্কারে সক্ষম হয়েছি এবং অল্প কয়েক মাসের মধ্যেই মানবশরীরে পরীক্ষায় নামতে পেরেছি।

অধ্যাপক শ্যাটোক আরও বলেন, ‘আমি আসলে বুঝতে পেরেছি, করোনার ভ্যাকসিন আবিষ্কার না হওয়া পর্যন্ত মানুষের জীবন স্বাভাবিক হবে না। সেই উপলব্ধি থেকেই এই অগ্রসরমূলক কর্মকাণ্ডে (ভ্যাকসিনের ট্রায়াল) অংশ নিয়েছি।’

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য