আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ লালমনিরহাট সদর উপজেলায় বিপুল পরিমাণ সরকারি ওষুধ ও ১৭৫টি ওজন পরিমাপক যন্ত্রসহ এক দম্পতিকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৩ জুন) সন্ধ্যায় লালমনিরহাট সদর থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) মাহফুজ আলম এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। এর আগে, বিকালে সদর উপজেলার পৌরসভার ড্রাইভারপাড়া এলাকা থেকে বিপুল পরিমাণ
পরিমাপক যন্ত্রসহ ওই দম্পতিকে আটক করা হয়।

আটকরা হলেন- গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ধামাইটারী গ্রামের মমতাজ উদ্দিনের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক ওরফে রেজা মিয়া (৪২) ও তার স্ত্রী নিলুফা ইয়াসমিন (৩৮)। তারা লালমনিরহাট শহরের ড্রাইভারপাড়া রেলওয়ের কোয়ার্টার ভাড়া নিয়ে পান ও ওষুধ বিক্রি করতেন।

পুলিশ সুত্রে জানাগেছে, দীর্ঘদিন ধরে লালমনিরহাট শহরের ড্রাইভারপাড়া রেলওয়ের কোয়ার্টার ভাড়া নিয়ে পান ও ওষুধ বিক্রি করতো। তিনি পান ও ওষুধের দোকানের আড়ালে সরকারি হাসপাতালের ওষুধসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম বাড়িতে রেখে বিক্রি করতেন। গোপন খবরের ভিত্তিতে সদর থানা পুলিশ ওই বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ১৭৫টি ওজন পরিমাপক যন্ত্রসহ বিপুল পরিমাণ বিভিন্ন ধরনের সরকারি ওষুধ জব্দ করে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার দায়ে রাজ্জাক ও তার স্ত্রী নিলুফা ইয়াসমিনকে আটক করা হয়।

জব্দকৃত ওষুধ সিজার লিস্টসহ মূল্য নির্ধারণের পর সদর থানায় তাদের বিরুদ্ধ মামলা দায়ের করা হয়। ৬/৭ বছর ধরে সরকারি ওষুধ বিক্রির কথা স্বীকার করেন তারা। এসব ওষুধ জেলার সব হাসপাতাল ও কমিউনিটি ক্লিনিকের জন্য বরাদ্দ বলেও প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের স্বীকার করেন আটকরা। যার বেশির ভাগই ছিল আদিতমারী উপজেলার বরাদ্দকৃত ওষুধ। এসব ওষুধ দেশের বিভিন্ন এলাকায় নিয়ে বিক্রি করতেন তারা।

এ বিষয়ে জানতে লালমনিরহাট সিভিল সার্জন ডা. নির্মলেন্দু রায় জানান, ‘স্বাস্থ্য বিভাগের লোকজন এ সিন্ডিকেটের সাথে জড়িত রয়েছে। পুলিশ সরকারি ঔষধ, মেডিকেল সরঞ্জামাদিসহ আটক দুইজনকে জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে সিন্ডিকেটে জড়িত স্বাস্থ্য বিভাগের লোকজনের নাম বের করে আইনগত ব্যবস্থা নিবেন। তিনি আরও বলেন, জড়িত স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীদের নাম পেলে তিনি বিভাগীয় ব্যবস্থা নিবেন।’

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য