কুড়িগ্রামর রৌমারীত ১৪১টি সরকারি গাছ কর্তনের অভিযোগে চরশৌলমারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কে এম ফজলুল হক মন্ডলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।

গতকাল রৌমারী উপজেলা বনবিভাগর অতিরিক্ত দায়িত্ব থাকা কুড়িগ্রাম বনবিভাগর কর্মকর্তা ইকবাল হাসান বাদি হয়ে রৌমারী থানায় এই মামলাটি করেন।

অভিযাগ সূত্রে জানা যায়, গত ২৪ মে দুপুরে চরশৌলমারী ইউনিয়নের চরশৌলমারী ক্লিনিক থেকে সানাপুর পর্যন্ত সংযোগ সড়ক ও চরশৌলমারী ব্রিজ থেকে ঘুঘুমারী পর্যন্ত সংযোগ সড়কের ১৪১টি ইউক্লিপটাস গাছ কর্তন করে বিক্রি করেন ইউপি চেয়ারম্যান কে এম ফজলুল হক মন্ডল।

সরকারি অনুমোদন ছাড়াই বিক্রি করেন। যার আনুমানিক মূল্য প্রায় ৬ লাখ টাকা। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে রৌমারী উপজলা বনবিভাগর অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা কুড়িগ্রাম বনবিভাগর কর্মকর্তা ইকবাল হাসান বাদি হয়ে রৌমারী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এব্যাপার রৌমারী থানার অফিসার্স ইনচার্জ ( ওসি) আবু মা. দিলওয়ার ইনাম জানান, এঘটনায় বাদির লিখিত অভিযাগ পেয়ে দন্ড বিধি ৩৭৯/৪১১ ধারায় চরশৌলমারী ইউপি চেয়ারম্যান কেএম ফজলুল হক মন্ডলের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য