দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার সর্বত্রই বাজারে উঠতে শুরু করেছে রসে ভরপুর ও সুস্বাদু লিচু। রসালো বিভিন্ন জাতের লিচুর ঘ্রাণ ছড়াছে বাজার জুড়ে। মহামারী করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও জমে উঠেছে মৌসুমী ফল লিচুর বাজার।

অনেকেই সামাজিক দূরত্বকে পাত্তা না দিয়ে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রায় প্রতিদিনে এই সময়ের মধ্যে মৌসুমী ফলের পাইকারী ও খুচরা বিক্রেতাদের জটলা পাকাতে দেখা যাচ্ছে উপজেলার সুন্দরপুর ইউপির ১০ মাইল বাজারসহ বিভিন্ন হাট-বাজারে। উপজেলায় মাদ্রাজি লিচুর বিক্রি শেষ পর্যায়ে।

এখন হাট-বাজারে বেদেনা, বোম্বাই, চায়না-২,৩,৪ লিচু, কাঁঠালি-বেদেনা ও গোলাপীসহ বিভিন্ন নামে লিচুর সর্বত্রই বিক্রি করছে বাগান মালিক ও ব্যবসায়ীরা। এছাড়া প্রতিনিয়ত দিনাজপুর জেলার কাহারোল উপজেলা হতে গড়ে প্রায় ৫০-৬০টি ট্রাক রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় লিচু নিয়ে যাচ্ছে।

কাহারোল উপজেলায় চলতি লিচুর মৌসুমে লিচুর বাম্পার ফলন হয়েছে এবং লিচু চাষীরা দামও পাচ্ছে আশানুরুপ। উপজেলা কৃষি অফিস জানায়, উপজেলার ৬ টি ইউনিয়নে ছোট-বড় মিলে প্রায় ২’শত অধিক লিচুর বাগান রয়েছে।

এদিকে লিচুর বাগান মালিক মোঃ হারুন জানান, আমার বাগান হতে ঢাকা রাজধানীর ব্যবসায়ী তরিকুল লিচু ক্রয় করে ঢাকায় নিয়ে যাচ্ছে। তিনি জানান, গতবারের চেয়ে লিচুর দাম এবার স্বাভাবিক রয়েছে। করোনার কারণে কিছুটা দামে ভাটা পড়েছে।

সকাল হতে বিকাল পর্যন্ত লিচুর বাগানে লিচু ব্যবসায়ীরা গাছ হতে লিচু ভেঙ্গে নিয়ে যাচ্ছে প্রতিদিন। এব্যাপারে উপজেলার কৃষি অফিসার কৃষিবিদ আবু জাফর মোঃ সাদেক জানান, বর্তমানে লিচুর বাজার তুলনামুলক ভাল। এবার লিচুর তেমন ধরনের রোগ বালাই ছিল না। আমরা লিচু চাষিদের সার্বক্ষণিক পরামর্শ দিয়েছি এবং বাগান মনিটরিংও করেছি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য