প্রস্তাবিত বাজেটে দেশীয় ব্রান্ডের তামাকজাত পণ্যের উপর কর বাড়ানোর প্রতিবাদে রংপুরে মানববন্ধন করেছেন শতভাগ দেশীয় মালিকানাধীন সিগারেট কোম্পানীগুলোর শ্রমিক, কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা। এতে দেশীয় মালিকানাধীন সিগারেট কোম্পানিগুলোর সুরক্ষাসহ শ্রমিক বাঁচানোর দাবি জানান।

মঙ্গলবার (১৬ জুন) সকাল সাড়ে এগারোটায় জাহাজ কোম্পানি মোড় সংলগ্ন রংপুর রিপোর্টার্স ক্লাব লেনে এই মানববন্ধন সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। প্রায় দুই শতাধিক শ্রমিক, কর্মকর্তা ও কর্মচারী মানববন্ধনে অংশ নেয়।

এসময় সিগারেট শিল্পে জড়িত শ্রমিকরা বলেন, দেশে ব্যবসারত ২৬টি সিগারেট কোম্পানির মধ্যে ২৪টিই শতভাগ দেশীয় মালিকানাধীন। আর দুইটি বিদেশী মালিকানাধীন। প্রস্তাবিত বাজেটে সিগারেটের দাম ও কর হার নির্ধারণে দেশী ও বিদেশী কোম্পানীগুলোকে একই কাতারে আনা হয়েছে। এতে দেশীয় মালিকানাধীন কোম্পানিগুলোর সুরক্ষা দেয়া হয়নি। বিদেশীদের সাথে প্রতিযোগিতায় দেশীয় কোম্পানীগুলো টিকে থাকতে হিমশিম খেতে হবে। মালিকদের পাশাপাশি ক্ষতির মুখে পড়বে লাখ লাখ শ্রমিকও। এমনকি আয়ের পথ বন্ধ হয়ে পথে বসতে হবে লাখো শ্রমিকদের।

তারা অভিযোগ করে বলেন, ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে প্রধানমন্ত্রীর দেশীয় ব্রান্ডের বিড়ি সিগারেটের পৃথক মূল্য নির্ধারণের নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে হবে। ২০১৮-১৯ অর্থ বাজেটে নিম্নস্লাব শুধুমাত্র দেশীয় মালিকানাধীন কোম্পানিগুলো সংরক্ষিত রাখার জন্য সংসদে অনুমোদন পাওয়ার পরও আজও তা বাস্তবায়ন হয়নি।

এমতাবস্থায় তামাক শিল্পকে বাঁচাতে নিম্নস্লাবের সিগারেট উৎপাদনে শতভাগ দেশীয় মালিকানাধীন কোম্পানির জন্য রিজার্ভ, কর নির্ধারণ হার কমানোসহ শ্রমিকদের স্বার্থ সংরক্ষণের দাবি জানানো হয়।
এদিকে পুলিশ বাঁধার কারণে সীমিত পরিসরে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।এতে শ্রমিক ফেডারেশানের সভাপতি আমিনুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আতিকুল ইসলাম আতিকসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শ্রমিক ও কর্মচারীরা বক্তব্য রাখেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য