ঠাকুরগাঁও রাণীশংকৈল উপজেলার লেহেম্বা ইউনিয়নের বিরাশি বাজার নামক এলাকার একটি বাসা থেকে মঙ্গলবার(১৬জুন) সকালে একই রশিতে গলায় ফাঁসরত অবস্থায় এক দম্পতির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

ওই দম্পতির নাম বিপুল কুমার ওরফে ঝড়ু(২৫) এবং পারুল রাণী (২২)।বিপুল বিরাশী এলাকার মৃত শেঠ কুমার রায়ের ছেলে। আর পারুল রানী বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার আধার দিঘী বড় র্কোট পাড়ার ঝাটালুর মেয়ে। তাদের আট মাস আগে বিয়ে হয়েছিল। সাত মাসের অন্তঃসত্বাও ছিলো পারুল রাণী বলে নিশ্চিত করেন স্থানীয়রাসহ তাদের নিকট আত্নীয় সুনীল।

স্থানীয়রা জানায়, ঝুলন্ত লাশের ঘরের কাছে গিয়ে চরম পরিমাণ রাসায়নিক বিষের গন্ধ পাওয়া যায়। তাছাড়াও একটি চিরকুট পাওয়া গেছে। যেখানে তারা লেখেছেন, আমাদের মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নই। আমরা নিজের ইচ্ছায় মৃত্যুবরণ করছি। কথা হচ্ছে একটা আমার বাবা যে যৌতুক দিয়েছিল। তা ফেরত দিতে বলছি না। আমাদের ইচ্ছে একটাই যে, আমার গহনা আর ৪টি আংটি একটি মোটরসাইকেল ও জিনিসপত্র পড়ছিলো। সেগুলো যেন আমার বাবা মা পায়। এছাড়াও তারা তাদের লাশেঁর সমাধি যেন, একই স্থানে করা হয় বলেও তারা লেখে যান।

তবে বিপুলের পালিত মা মমিতা ও স্থানীয়রা বলেন, কি কারণে এইভাবে তারা মারা গেলেন তা আমরা বুঝতে পারছি না।

বিপুল কুমার ওরফে ঝড়ু’র পালিত মা মমিতা বলেন, প্রতিদিনের ন্যায় গতকাল সোমবার খাওয়া দাওয়া শেষে। সবাই ঘুমাতে যাই। কিন্তু পরের দিন সকালে বউমাকে ঘুম থেকে উঠার জন্য ডাকাডাকি করলেও না উঠায়। বা কোন সাড়া শব্দ না দেওয়ায়। ঘরের কাছে গিয়ে দরজা ঠেলতেই দরজা খুলে যায়। দরজা খুলে যাওয়ার পর দেখি তারা স্বামী স্ত্রী দুজনেই ঘরের বাঁধা টিনের বাশেঁর সাথে একই রশিতে ঝুলে রয়েছে। এ দেখে চিৎকার দিলে আশপাশের লোকজন এসে জড়ো হয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে দম্পতির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে।

জানতে চাইলে অফিসার ইনর্চাজ আব্দুল মান্নান মুঠোফোনে বলেন, মেডিক্যাল রির্পাট না আসা পযর্ন্ত ঘটনাটির রহস্য বলা যাচ্ছে না।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য