দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের বীরগঞ্জে বেশির ভাগ মানুষ মানছে না স্বাস্থ্যবিধি। (কোভিড-১৯) করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে মাস্ক ব্যবহারের ওপর সরকারের কঠোর নির্দেশনা থাকলেও বীরগঞ্জ উপজেলায় বেশির ভাগ লোক তা মানছে না।

আগের নিয়মে চলা ফেরা করেছে সবাই,মানছে না স্বাস্থ্যবিধি। দিনাজপুর জেলা সদরে মাস্ক ব্যবহার না করায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জরিমানা আদায় হলেও বীরগঞ্জ পৌরশহর ও উপজেলার হাট-বাজারগুলোতে এখন পর্যন্ত নামনি উপজেলা প্রশাসন।

এতে প্রশাসনের দায়িত্বহীনতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে সচেতন মানুষ। গতকাল শনিবার দুপুরে উপজেলার গোলাপগঞ্জ হাটে গিয়ে দেখা গেছে,করোনার মধ্যেই সামাজিক দূরত্ব মানার কোনো বলাই নেই! বেশির ভাগ লোক মাস্কও ব্যবহার করছে না।

কেউ কেউ মুখে না পরে গলায় ঝুঁলিয়ে রেখেছে। জিজ্ঞেসা করলে নানা ধরনের অজুহাত দিচ্ছে। মাস্ক ব্যবহার না করলে ভ্রাম্যমাণ আদালতে এক লাখ টাকা জরিমানা ও ছয় মাসের কারাদণ্ড প্রদানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

কিন্তু প্রশাসন আইনের যথাযথ প্রয়োগের দিকটি গুরুত্ব না দেওয়ায় করোনা ঝুঁকি দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র জানা গেছে, করোনায় আক্রান্ত হয়ে বীরগঞ্জ থানার পুলিশ সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। এবং এপর্যন্ত ডাক্তা,ব্যাংকার, সরকারি কর্মকর্তা সহ ২৫ জনের মতো আক্রান্ত হয়েছে।

গতকাল ও একজন মহিলা নতুন করে শনাক্ত হওয়ার বিষয় নিশ্চি করেছেন। স্বাস্থ্য সচেতন ও বিধি -নিষেধ মানা না হলে এর ভয়াবহতা দ্রুত বৃদ্ধি পাবে। বীরগঞ্জ সুজালপুর ইউনিয়নের ভ্যান চালক মহাসিন আলী বলেন,’সংসারের প্রয়োজনে বের হয়েছি। কিন্তু কাম না করলে খাবো কি! নিজে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক পরে বের হলেও বেশির ভাগ মানুষ মাস্ক ব্যবহার না করায় ঝঁকি থেকেই যায়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ইয়ামিন হোসেন বলেন, ‘ মানুষকে সচেতন করা হচ্ছে। নিজ দায়িত্বে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। তার পরও নিজ থেকে সচেতন না হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য