দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার পল্লীতে মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলের পিড়ির আঘাতে ঘুমন্ত বাবা নাজারুস মুর্মু (৬০) নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১১ জুন) ভোর রাতে বিরামপুর উপজেলার খাঁনপুর ইউনিয়নের বুচকি আদিবাসি গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। পুলিশ এই ঘটনায় জড়িত মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলে আল বেনুস মুর্মুকে আটক করেছে।

বিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান মনির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, বুধবার রাতের খাবার খেয়ে বাড়ির সবার সাথে ঘুমিয়ে পড়েন আল বেনুস মুর্রমু। হঠাৎ রাত ৩টার দিকে ঘুম থেকে ওঠে বাবা নাজারুস মুর্রমুর মাথায় বাসার পিঁড়ি দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে। পরে বাবার চিৎকারে বাড়ির সকলের ঘুমভাঙ্গলে ছেলে আল বেনুস মুর্মু সবাইকে বলে আমি আমার বাবাকে মেরেছি।

এসময় পরিবারের লোকজন আহত বাবা নাজারুস মুর্মুকে উদ্ধার করে বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসা রত অবস্থায় রাত ভোরে তিনি মারা যান।

দীর্ঘদিন থেকে ছেলে আল বেনুস মুর্মু মানসিক ভারসাম্যহীন রোগে আক্রান্ত ছিল এলাকাবাসী তাকে জানিয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত ছেলে আল বেনুস মুর্মুকে আটক করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য