দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার কড়াইবাড়ী গ্রামের মৃত পশুরাম চন্দ্রের পুত্র বিপ্লব একজন মৎস্যজীবি। বিভিন্ন জলাশয়ে মাছ আহরন করে বাজারে বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। তাতে তার সংসার ঠিক ভাবে চলতনা।

তাই প্রতিবেশীদের পরামর্শে নিজের পুকুর না থাকায় অন্যের পুকুর লীজ নিয়ে এবং নিজের পুজি না থাকায় ধার কর্জের টাকা নিয়ে বিভিন্ন প্রজাতির মাছের পোনা উৎপাদন শুরু করেন। পোনা উৎপাদনে দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছিলেন।

স্বপ্ন ছিল চাষকৃত পরিপক্ক পোনা মাছ বিক্রি করে সংসারে ফিরে আনবে স্বচ্ছলতা। কিন্তু হটাৎ কাল বৈশাখী ঝড়ের মত তার স্বপ্ন ভেঙ্গে খান খান হয়ে গেছে। বিপ্লব আবেগ আপ্লুত কন্ঠে জানান- দাদা আমার সব স্বপ্ন শেষ হয়ে গেছে। আমি এখন কিভাবে সংসার চালাবো।

বিপ্লব জানান- ৩ মাসের জন্য ৯০ হাজার টাকা দিয়ে তিনি তার বাড়ীর সামান্য দুরে একটি পুকুর লীজ নিয়ে তাতে মাছের পোনা উৎপাদন কার্যক্রম শুরু করেন। সব মিলে এ যাবত পর্যন্ত প্রায় আড়াই লাখ টাকা তিনি খরচ করেছেন। কমপক্ষে তিনি ৩ লক্ষ টাকার মাছ বিক্রি করতেন।

২/১ দিন পর থেকে পোনাগুলি বাজারে বিক্রি করার কথা ছিল। কিন্তু গত মঙ্গলবার রাতে কে বা কারা পুর্ব শক্রতার জেরে তার সেই লীজ নেয়া পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে। বুধবার সকাল থেকে পুকুরের মাছ মরে ভেসে উঠে এবং দুর্গন্ধ ছড়াতে থাকলে আশেপাশের লোকজন টের পেয়ে তাকে সংবাদ দিলে সে দ্রুত পুকুরে গিয়ে ঘটনা দেখে। তিনি এর সুষ্ঠ বিচার দাবী করেন।

সমাজের কিছু দুষ্ট প্রকৃতির মানুষ নিজের স্বার্থ হাছিল ও আক্রোশের রোষানলে এভাবেই অংসখ্য বিপ্লবের স্বপ্ন ভেঙ্গে যায়। দিশেহারা হয়ে পড়ে বিপ্লবের মত যুবকেরা। আর যেন কোন বিপ্লবের স্বপ্ন ভেঙ্গে না যায় তাই প্রকৃত দোষীদের দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি দাবী জানিয়েছে এলাকাবাবাসী।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য