দিনাজপুরে নবাবগঞ্জ উপজেলার ১ নং জয়পুর ইউনিয়নের উত্তর সাহাবাজ পুর মৌজায় মনোহরপুর (কালির হাট) নামক স্থানে জয়পুর গ্রামের আমিনুলের ছেলে রাসেল সরকার সততা ব্রিক্স নামক ইটভাটা মৌসুম শেষে ভাটার নির্গত গ্যাসের কারণে কৃষি ফসলের প্রায় লাখ টাকার আম, ধান, কাঠাল সহ বেশ কিছু ফসল নষ্ট হয়েছে। ইউপি সদস্য হামিদুল হক অভিযোগ করে জানান ইটভাটার নির্গত গ্যাসের ফলে তার এক একর জমির বোর ধানের ফলনের প্রচুর পরিমানে ক্ষতি হয়েছে ।

এছাড়াও কৃষক মাবুদ আলী, শফিউল ইসলাম, আঃ মতিন, নুর ইসলাম, সহ গণ সাক্ষরিত একটি অভিযোগ নবাবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার সহ কৃষি কর্মকর্তা বরাবরে অভিযোগ দাখিল করেছেন । এবিষয়ে ওই ইউনিয়নের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আমিরুল ইসলাম কে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী কৃষকেরা।

এবিষয়ে ১নং জয়পুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আয়নুল হক চৌধুরীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান কৃষকদের অভিযোগের কারণে তিনিও ক্ষতিগ্রস্ত ফসলের জমি সরেজমিনে দেখেছেন। এবিষয়ে নবাবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আতাউর রহমান জানান আভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে সত্যতা পেলে ব্যাবস্থা নেয়া হবে ।

এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মুঠো ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি অভিযোগ খতিয়ে দেখা আইনানুগ ব্যাবস্থা নিবেন বলে এ প্রতিবেদকে জানান। অপর দিকে ইটভাটা মালিক মোঃ রাসেল সরকার জানান ইটভাটার আশেপাশে আরো ফসল ছিলো তাদের ক্ষতি হয়নি । তার ইটভাটার নির্গত গ্যাসের কারণে ফসলের ক্ষতি হয়নি। তার ইটভাটার বিরুদ্ধে দায়ের করা অভিযোগটির সত্যতাও নেই । তবে অভিযোগকারীরা ইটভাটাটির অপসারণ চেয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য