যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটনে গান্ধী মূর্তি ভাঙচুরের ঘটনাকে কলঙ্কজনক হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সোমবার হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এমন মন্তব্য করেন। মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে সাম্প্রতিক বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ চলাকালে অজ্ঞাত দুষ্কৃতিকারীরা ওয়াশিংটনে মহাত্মা গান্ধীর ওই ভাস্কর্য ভাঙচুর করে। এটি ছিল ওয়াশিংটনে ভারতীয় দূতাবাসের সামনের রাস্তায়। এ ঘটনায় স্থানীয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে অভিযোগ দায়ের করেছে ভারতীয় দূতাবাস কর্তৃপক্ষ।

টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে ওই ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন ভারতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত কেন জাস্টার। তিনি বলেন, ‘ওয়াশিংটনে গান্ধী মূর্তিতে ভাঙচুরের ঘটনায় খুব খারাপ লাগছে। আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ড এবং ওই হত্যাকাণ্ডের পর সংঘটিত লুটপাটের নিন্দা জানাই। যে কোনও ধরণের বৈষম্য ও গোঁড়ামির বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান। আমরা ঘুরে দাঁড়াবই।’

কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার প্রতিবাদে উত্তাল যুক্তরাষ্ট্র। সেই বিক্ষোভ থেকেই কেউ বা কারা ওয়াশিংটনে ভারতীয় দূতাবাসের সামনে গান্ধী মূর্তি ভাঙচুর করে চলে যায়। এই ঘটনার জন্য ভারতের কাছে ক্ষমা চাইলেন ভারতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত কেন জাস্টার। টুইটারে তিনি লেখেন, ‘ওয়াশিংটনে গান্ধী মূর্তিতে ভাঙচুর করা হয়েছে দেখে খুবই খারাপ লাগছে। আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যা ও তারপরের লুঠপাটের নিন্দা করছি। আমরা যেকোনও ধরণের বৈষম্য ও গোঁড়ামির বিরুদ্ধে। আমরা ঘুরে দাঁড়াবই।’

২০০০ সালে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারি বাজপেয়ীর যুক্তরাষ্ট্র সফরকালে ওই ভাষ্কর্যটি তৈরি করা হয়েছিল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য