দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের বিরামপুরে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে পঞ্চম শ্রেণি পড়ুয়া (১১) এক শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় ওই শিশু শিক্ষার্থীর মা বাদি হয়ে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ এই ঘটনায় জড়িত ধর্ষক সঞ্জিত কুমার সিং (২০)কে আটক করেছে।

সোমবার (১জুন) দিবাগত রাতে পৌরশহরের দেবীপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। মঙ্গলবার সকালে (২ জুন) ধর্ষণের শিকার শিশুর মা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন।

আজ বুধবার (৩ জুন) সকালে ধর্ষককে পুলিশ আটক করে। আটক ধর্ষক সঞ্জিত কুমার সিং বিরামপুর পৌর শহরের দেবিপুর এলাকার শ্রী.পরিমল চন্ত্র সিং এর ছেলে। শিশুটি স্থানীয় একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

বিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান মনির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার এজাহার সুত্রে জানাযায়, বিদ্যালয় বন্ধ থাকায় সোমবার সন্ধায় বাবা ও প্রতিবেশীদের সঙ্গে বাড়ির পাশে বসে ছিল শিশুটি।তাদের সাঙ্গে ওই স্থানে ধর্ষক সঞ্জিত কুমার সিং বসে ছিলেন। এর এক পর্যায়ে মেয়েটি একায় বাড়ির দিকে যাওয়ার পথেই ওই সঞ্জিত কুমার সিং তার মুখ চেপে ধরে পাশে দেয়ালে ঘোরা পরিত্যাক্ত একটি জমিতে নিয়ে গিয়ে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করতে থাকে। এক পর্যায়ে মেয়েটির আত্মচিৎকারে শিশুটির বাবসহ বেশ কয়েক জন প্রতিবেশি ঘটনাস্থলে আসলে সঞ্জিত কুমার পালিয়ে যায়।পরে তারা শিশুটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে যায়।

বিরামপুর থানার (ওসি) মো. মনিরুজ্জমান মনির বলেন,‘ সোমবার রাতে শিশুটিকে ধর্ষনের ঘটনায় সঞ্জিত কুমারকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী/৩) এর ৯ (১) ধারায় ওই শিশুটির মা বাদি হয়ে বিরামপুর থানায় মামলা দায়ের করেছে। আজ বুধবার (৩ জুন) দুপুরে ওই যুবককে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে’।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য