কুড়িগ্রামের রাজারহাটে হাফেজ স্বামী ধারালো ছুরি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করেছে তার স্ত্রীকে। এ লোমহর্ষক হত্যাকান্ডটি ঘটেছে, ২রা জুন মঙ্গলবার রাতে উপজেলার চাকিরপশার ইউনিয়নের নীলেরকুটি চওড়া গ্রামে। এ ঘটনায় পুলিশ ৩রা জুন বুধবার সকালে ঘাতককে আটক করেছে।

এলাকাবাসীরা জানান, নীলেরকুটি চওড়া গ্রামের বাশারত উল্লার কন্যা বিউটি বেগম(২৫) কে ৬বছর আগে বিদ্যানন্দ ইউনিয়নের মানাবাড়ি কালিরহাট গ্রামের আঃ মতিনের হাফেজ পুত্র হাবিবুর রহমান(২৮) এর সঙ্গে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে ওই হাফেজ তার স্ত্রীকে নির্যাতন করে। এরইমধ্যে তাদের কোলে এক কন্যা সন্তানের জন্ম হয়।

দিন দিন স্বামীর নির্যাতনের মাত্রা আরো বেড়ে যাওয়ায় বেশ কয়েক বার শালিশ বৈঠকও হয়েছিল। গত ১৫ রমজান হাফেজ হাবিবুরের নির্যাতনে বিউটি বেগম আহত হলে বাবার বাড়ির লোকজন গিয়ে তাকে নিয়ে আসে।

হাবিবুর তার শ্বশুর বাড়িতে এসে পরিকল্পিতভাবে স্ত্রীকে বাড়ির বাইরে ডেকে নিয়ে যায়। পরে ছুরি দিয়ে পেটে আঘাত ও গলাকেটে স্ত্রীকে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করে এবং রাতেই অভিযান চালিয়ে হাবিবুরকে গ্রেফতার করে। পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার করে পুলিশ।

ওসি রাজু সরকার জানান, অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে হাবিবুর। তার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য