বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া নতুন করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে চলতি বছরের হজযাত্রা বাতিল করেছে বিশ্বের বৃহত্তম মুসলিম প্রধান দেশ ইন্দোনেশিয়া।

করোনাভাইরাস নিয়ে উদ্বেগ ও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার কারণে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে দেশটির ধর্মমন্ত্রী ফখরুল রাজি মঙ্গলবার জানিয়েছেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স লিখেছে, প্রতি বছর ইন্দোনেশিয়া থেকে কয়েক লাখ মুসলিম সৌদি আরবে হজ করতে যায়। কোটা পদ্ধতির কারণে গড়ে ২০ বছর অপেক্ষা করতে হওয়ায় অনেক ইন্দোনেশীয়ই জীবনে মাত্র একবার হজ করার সুযোগ পান।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৩০ জুলাই অর্থাৎ ৯ জিলহজ হজ হবে এবার। করোনাভাইরাস ঠেকাতে কঠোর কড়াকড়ি আরোপ করা সৌদি আরব সরকার হজের বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত না দিলেও পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত বিদেশিদের ওমরাহ পালনের সুযোগ স্থগিত রেখেছে।

চলতি বছর হজ কোটায় ইন্দোনেশিয়া থেকে দুই লাখ ২১ হাজার মানুষের সৌদি আরবে যাওয়ার সুযোগ ছিল। ইতোমধ্যে ৯০ শতাংশেরও বেশি লোক হজে যাওয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশনও সম্পন্ন করেছিলেন বলে দেশটির ধর্ম মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটের তথ্য।

জাকার্তার এক টেলিযোগাযোগ কোম্পানির কর্মী চলতি বছর হজে যাওয়ার জন্য নিবন্ধন করেছিলেন। রয়টার্সকে তিনি বলেন, যদিও তিনি ছয় বছর অপেক্ষার পর সুযোগটি পেয়েছিলেন, তারপরও সরকারের এ সিদ্ধান্ত মেনে নিতে আপত্তি নেই তার।

“যদি এটিই সিদ্ধান্ত হয়, আমি তা মেনে নেব। আমার বিশ্বাস আল্লাহর ইচ্ছাতেই সবকিছু হয়।”

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য