আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট থেকেঃ করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে সারাদেশে ট্রেন প্রায় দু-মাস বন্ধ ছিল। অবশেষে সরকারের অনুমোদনের পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে এক সিটে এক যাত্রীকে নিয়ে দীর্ঘ দুই মাস পর যাত্রা শুরু করেছে লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেন। এ সময় যাত্রীদের জন্য ট্রেনে পর্যাপ্ত সাবান, পানি, স্যানিটাইজার ও মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামুলক করা হয়েছে।

রোববার (৩১ মে) নির্ধারিত সময় সকাল ১০টায় ২০মিনিটে লালমননিরহাট রেলওয়ে স্টেশন থেকে ঢাকা কমলাপুরের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে ট্রেনটি। এর আগে ট্রেনটি শতভাগ হকার ও ভিক্ষুক মুক্ত হয়ে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে।

জানা গেছে, বিশ্ব ব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাস (কোভিড ১৯) সংক্রামন রোধে বাংলাদেশে অঘোষিত লকডাউনে গনপরিবহন বন্ধ করে সরকার। এতে রেলওয়ের লালমনিরহাট বিভাগীয় রুটের ১৪জোরা ট্রেন চলাচল বন্ধ করে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। অবশেষে দীর্ঘ দুই মাস পরে সীমিত পরিসরে স্বাস্থ্য বিধি মেনে প্রথম পর্যয়ে কয়েকটি আন্তঃনগর ট্রেন চলাচলের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। সেই সিদ্ধান্ত মোতাবেক স্বাস্থ্য বিধি মেনে যাত্রীদের শারীরিক দুরুত্ব বজায় রেখে রোববার(৩১ মে) নির্ধারীত সময়ে লালমনিরহাট রেলওয়ে স্টেশন থেকে যাত্রা শুরু করে লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেন।

যাত্রীদের সুরক্ষার জন্য অনলাইনের মাধ্যমে টিকিট বিক্রি করা হয়েছে। সেখানেও নির্ধারন করা হয়েছে শারীরিক দুরুত্ব। চাহিদা থাকলে স্বাস্থ্য বিধির কারনে পুরো ট্রেনটি অর্ধেক যাত্রী নিয়ে যাত্রা শুরু করে। এ ছাড়াও রেলওয়ে প্লাটফরম গেটে প্রবেশের আগে ডিজিটাল থার্মোমিটারে তাপমাত্র পরিমাপ ও শতভাগ মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামুলক করা হয়েছে। যাত্রীদের জন্য ট্রেনে পর্যাপ্ত সাবান, পানি ও স্যানিটাইজার রাখা হয়েছে।

দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পরে পুনরায় যাত্রা শুরু করা লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনটি গার্ড আল আমিনের পরিচালনায় কমলাপুর স্টেশনের উদ্দেশ্যে লালমনিরহাট ত্যাগ করে। চালক শফিউল আলম ও সহকারী চালক আবু বক্কর সিদ্দিক ট্রেন চালানোর দায়িত্ব রয়েছেন।ট্রেনে প্রবেশ ও বাহির পথ পৃথক করে সীমিত পরিসরে হলেও পুর্বের সকল স্টেশনে যাত্রা বিরতী দিবে লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেন।

যাত্রী সারেরা বেগম বলেন, নির্ধারীত মুল্যে অনলাইনে টিকিট করেছি। পাশের সিট ফাঁকা হলেও টিকিট মুল্য বাড়ানো হয়নি। সবথেকে মজার বিষয় ট্রেনটি শতভাগ হকার ও ভিক্ষুকমুক্ত। এমন পরিবেশ আগামী দিনেও বজায় রাখলে করোনা সংক্রামন রোধে কার্যকর ভুমিকা রাখবে বলেও দাবি করেন তিনি।

বাংলাদেশ রেলওয়ে লালমনিরহাট বিভাগীয় ব্যাবস্থাপক তাপস কুমার দাস বলেন, সরকারী নির্দেশনা মেনে অনলাইনে টিকিট বিক্রি করে লালমনি এক্সপ্রেস যাত্রা শুরু করেছে। একই সাথে যাত্রীদের জন্য ট্রেনে পর্যাপ্ত পরিমানে সাবান পানি ও স্যানিটাইজার রাখা হয়েছে। প্রতিটি স্টেশনে যাত্রীদের তাপমাত্রা ও মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামুলক করা হয়েছে। পৃথক করা হয়েছে ট্রেনে প্রবেশ ও বাহির পথ। পাশের সিট অবিক্রিত রেখে শারীরিক দুরুত্ব রাখা হয়েছে। সব মিলে সকল নির্দেশনা মেনেই যাত্রা শুরু হয়েছে ট্রেনের।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য