দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার গোয়ালডিহি ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুস সাত্তারের বিরুদ্ধে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির রেশন কার্ডকে কেন্দ্র করে তার এলাকার ফয়জুদ্দিন নামে এক ভ্যানচালকের হাত কেটে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এতে ঐ ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।

অভিযোগের সূত্রে জানা যায়, গোয়ালডিহি গ্রামের ভ্যানচালক ফয়জুদ্দিন খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির রেশন কার্ডের জন্য ঐ এলাকার ইউপি সদস্য আঃ সাত্তারকে ৭০০ টাকা দেয়। গতকাল বাড়ি যাওয়ার পথে কার্ড করে না দেওয়ায় ইউপি সদস্যের কাছে টাকা ফেরত চাইলে তিনি পরে কার্ড করে দেওয়ার কথা বলেন। ভ্যানচালক ফয়জুদ্দিন তাতে রাজি না হলে ইউপি সদস্যের সাথে বাকবিত-া শুরু হয়।

এতে এক পর্যায়ে ইউপি সদস্য ধারালো অস্ত্র দিয়ে ফয়জুদ্দিনের মাথায় আঘাত করতে ধরলে তিনি বাম দিয়ে তা প্রতিহতের চেষ্টা করেন। এতে তার বাম হাত কেটে গুরুতর রক্তাক্ত জখম হয়। পরে স্থানীয় প্রতিবেশি লোকজন তাকে উদ্ধার করে পাকেরহাট হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্মরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য দিনাজপুর এম. আঃ রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য আব্দুস সাত্তার মুঠোফোনে বলেন, তার সাথে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির কার্ড দেওয়ার কথা কখনো হয় নি। আর টাকা নেওয়া তো দূরের কথা। গত কয়েকদিন আগে সরকারের নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী এক পরিবারে একটির বেশি সুবিধা দেওয়া যাবে না।

এতে ঐ এলাকার ওবাইদুর রহমান ৪০ দিনেব কর্মসূচিতে কাজ করেন। এজন্য তার ১০ টাকার চালের কার্ডটি বাতিল করা হয়েছে। এছাড়াও সুরত আলী নামে এক ব্যক্তির নামে বয়স্ক ভাতা কার্ড থাকায় তার স্ত্রী মফিজন খাতুনের ১০ টাকার চালের কার্ড বাতিল করা হয়।

এ বিষয় গুলোকে কেন্দ্র করে ফয়জুদ্দিন তাদের পক্ষ নিয়ে ঈদের দিন বিকেলে তার সাথে বাগবিত- হয়। এর তিন পর আবার তাদের বাড়ির পার্শ্বে এক দোকানে তিনি কটাক্ষ করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করলে তখনো বাগবিত- হয়। শেষে গত শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে একই কথা নিয়ে বাগবিত-ের এক পর্যায়ে আমাকে ধাক্কা দিলে আমিও তাকে মারধর করি।

খানসামা থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ কামাল হোসেন বলেন, এ বিষয়ে থানায় অভিযোগ হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে এর সত্যতা পেলে ঐ ইউপি সদস্যকে আটক করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য