নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের রূপাহারা গ্রামে জমিজমা বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিজের চার বছরের শিশু সন্তানের গলায় ছুরি চালিয়েছে এক পাষন্ড পিতা।

এ ঘটনায় পাষন্ড পিতা মসিদুল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ।

এলাকাবাসী শিশুটিকে উদ্ধার করে প্রথমে ডিমলা উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে দুপুরে শিশুটিকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।

এলাকাবাসী জানায় একই গ্রামের শনে আলীর ছেলে হাফিজুল ইসলামের সঙ্গে ৭০ শতক জমি নিয়ে মসিদুল ইসলামের বিরোধ চলে আসছিল। বিরোধপূর্ণ জমিতে সম্প্রতি মসিদুল ঘর তুলে।

আজ বুধবার সকালে হাফিজুল ইসলাম তার দলবল নিয়ে মসিদুলের ঘর ভাংচুর করছিল।

এ সময় মসিদুল ইসলাম প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে ধারালো ছুড়ি দিয়ে তার চার বছরের মেয়ে সুমী আক্তারের গলা কেটে মাটিতে ফেলে দেয়।

এ অবস্থায় প্রতিপক্ষরা পরিস্থিতি বেগতিক দেখে পুলিশকে খবর দিয়ে গ্রামবাসীর সহায়তায় শিশুটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হয়।

ডিমলা থানার ওসি মফিজুল ইসলাম জানান এঘটনায় শিশুটির বাবাকে আটক করা হয়েছে

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য