কুড়িগ্রামের চর রাজিবপুর উপজেলায় করোনায় কর্মহীন,নিম্ন-মধ্যবিত্ত ও হত দরিদ্রদের প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত আর্থিক সহায়তার তালিকা তৈরিতে ব্যাপক অনিয়ম হয়েছে।যা মাঠ পর্যায়ে সংশোধন করতে উপজেলা প্রশাসন হিমশিম খেয়েছে। ফলে চর রাজিবপুর উপজেলার আর্থিক সহায়তার তালিকায় দলীয় নেতা ,তাদের স্ত্রী,মা ,সন্তান ও ইউপি সদস্যদের পিতা-মাতা ও আত্মীয়-স্বজনদের নিয়ে তালিকা প্রস্তুত হল।যার ফলে তালিকায় বিল্ডিং বাড়িওয়ালার নাম হলেও পাশ্বের বিধবা ও অসহায় পরিবারের নাম আসেনি। এতে স্থানীয় নেতা ও সংশ্লিষ্ট নেতা একে অপরের সমালোচান করছে মাত্র।

জানাগেছে,উক্ত সহায়তার তালিকায় চর রাজিবপুর উপজেলার ৩টি ইউনিয়নের ২৭টি ওয়ার্ডে ৩১৩৯টি কার্ডের তালিকা প্রস্তুত হয়েছে। প্রতি পরিবার পাবে ২৫০০শত টাকা। যা মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে টাকা পাবে সুবিধা ভোগীরা। সম্প্রতি উপজেলা নির্কাহী কর্মকর্তা মো.মেহেদী হাসান তালিকা সঠিক ভাবে যাচাইয়ের জন্য প্রাথমিক শিক্ষক ও সরকারি বেশ কয়েকজন কর্মকর্তাকে ট্যাগ কর্মকর্তা নিয়োগ করে যাচাই-বাচাইয়ের দায়িত্ব দেন।

এ ব্যাপারে কয়েক জন ট্যাগ অফিসারের সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে,তারা জানান, নামের ও মোবাইল ফোনের বেশ গরমিল পাওয়া গেছে। স্বল্প সময়ের মধ্যে পুরোপুরি সঠিক করা যায়নি। ফলে তালিকায় পরিবার কেন্দ্রিক,দলীয় ও আত্মীয়করণই রয়ে গেছে।

এ ব্যাপারে চর রাজিবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানান,আমি তালিকা স্বচ্ছ করার জন্য প্রাথমিক শিক্ষকদের ও উপজেলা ট্যাগ অফিসারের সম্বনয়ে কমিটি করে দিয়ে ছিলাম। তারা কিছু অনিয়মের কথা বলেছে। ট্যাগ অফিসারদের সেগুলো মার্ক করে দিতে বলেছি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য