লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় এক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের বাড়ি থেকে হাত পা বেধেঁ নির্যাতন করা নুরুজ্জামান (২৫) নামে আহত এক যুবককে উদ্ধার করেছে হাতীবান্ধা থানা পুলিশ।

রোববার (১৭ মে) দুপুরে হাতীবান্ধা থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ (ওসি) ওমর ফারুক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে শনিবার (১৬ মে) রাতে উপজেলার ভেলাগুড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মহির উদ্দনের বাড়ি থেকে আহত ওই যুবককে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ।

নির্যাতিত যুবক নুরুজ্জামান ওই এলাকার জাওরানী গ্রামের নবী হোসেনর ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ভেলাগুড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মহির উদ্দিনের ছেলে জাহাঙ্গীর আলমের মাদক ব্যবসাসহ তার নানা অনিয়ম নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্টাটাস দেয় নুরুজ্জামান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে চেয়ারম্যানের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম, ভাই মঞ্জু ও গ্রাম পুলিশ শামীম মিলে শনিবার দুপুরে জাওরানী বাজার থেকে চেয়ারম্যানের বাড়িতে নুরুজ্জামানকে তুলে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে তার হাত পা বেধেঁ অমানুষিক নির্যাতন চালিয়ে হাত পা বাধাঁ অবস্থায় একটি কক্ষে আটকে রাখা হয়।

পরে ইউপি চেয়ারম্যান মহির উদ্দিন আহত যুবক নুরুজ্জামানকে মাদক ব্যবসায়ী সাজিয়ে পুলিশে দেয়ার কৌশল করলে স্থানীয়রা রাতেই পুলিশকে বিষয়টি অবগত করেন।

পরে হাতীবান্ধা থানা পুলিশ চেয়ারম্যানের বাড়ি থেকে আটক আহত যুবককে উদ্ধার করে হাতীবান্ধা থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন। এ সময় সেখান থেকে পুলিশ ২৭০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় আহত যুবক নুরুজ্জামান বাদী হয়ে রাতেই চেয়ারম্যান মহির উদ্দিনসহ তাকে নির্যাতনকারী সকলের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন বলে ওসি ওমর ফারুক নিশ্চিত করেন।

তিনি আরো বলেন, আহত যুবককে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তার দায়ের করা অভিযোগ ও চেয়ারম্যানের বাড়ি থেকে উদ্ধার ২৭০ পিস ইয়াবা নিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য