পাকিস্তানে তথাকথিত ‘পারিবারিক সম্মান রক্ষায়’ দুই কিশোরীকে হত্যা করা হয়েছে, এই দুই আপন বোনকে হত্যা করেছে তাদের এক চাচাতো ভাই।

খাইবার পাখতুনখোয়ার উত্তর ও দক্ষিণ ওয়াজিরিস্তানের সীমান্তবর্তী একটি গ্রামে হত্যাকাণ্ডের এ ঘটনা ঘটেছে বলে বিবিসি জানিয়েছে।

ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়া ৫২ সেকেন্ডের একটি ভিডিওর কারণে ওই দুই বোনকে গুলি করে হত্যা করে তাদের পরিবারের ওই সদস্য।

সংক্ষিপ্ত ওই ভিডিওতে ওই দুই বোন ও অপর একটি কিশোরীকে এক তরুণের সঙ্গে নির্জন এলাকায় ঘুরতে দেখা যায় বলে জানিয়েছে পুলিশ। ওই তরুণই ভিডিওটি করেছে।

ঘটনা তদন্তে প্রত্যন্ত ওই এলাকায় পুলিশের একটি টিম পাঠানো হয়েছে।

পুলিশের এক প্রতিবেদনের উদ্ধৃতি দিয়ে পাকিস্তানি দৈনিক ডন জানিয়েছে, সীমান্তবর্তী গ্রাম শাম প্লেইন গারিয়োমে বৃহস্পতিবার বিকালে ঘটনাটি ঘটেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওর কারণেই ১৬ ও ১৮ বছর বয়সী ওই দুই বোনকে খুন করা হয়েছে।

ভিডিওটি এক বছর আগে ধারণ করা হয়েছিল। সম্ভবত কয়েক সপ্তাহ আগে ভিডিওটি ভাইরাল হয় বলে ডনকে জানিয়েছেন একজন ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা।

তিনি বলেছেন, “এই মূহুর্তে কোনো পদক্ষেপ নেওয়ার আগে ভিডিওতে থাকা তৃতীয় ওই কিশোরী ও ওই তরুণের জীবনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ওপর সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছি আমরা।”

যে গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে সেটি প্রত্যন্ত ও নিরাপত্তা বিবেচনায় ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা বলে জানিয়েছেন তিনি।

“ওই এলাকার উপজাতীয় সংস্কৃতিতে সমাজের সামনে গোষ্ঠীর সম্মান ক্ষুণ্ণ করা নারী-পুরুষের কোনো স্থান নেই,” বলেন এ পুলিশ কর্মকর্তা।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ জানিয়েছে, নারী ও কিশোরীদের বিরুদ্ধে সহিংসতা পাকিস্তানের একটি গুরুতর সমস্যা হিসেবেই রয়ে গেছে। প্রতি বছর দেশটিতে ‘পারিবারিক সম্মান রক্ষার’ নামে প্রায় হাজারখানেক হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয় বলে ধারণা মানবাধিকার আন্দোলনকারীদের।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য