দিনাজপুর সংবাদাতাঃ সেনাবাহিনীর কর্তৃক সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে ব্যবসা স্থানান্তরের নির্দেশনা উপেক্ষা করেছে দিনাজপুর শহরের পুলহাট নতুন বাজারের কাঁচামাল ব্যবসায়ীরা।

জানা গেছে, করোনাভাইরাস বিস্তার রোধে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে দিনাজপুর শহরের পুলহাট নতুন বাজারের সবজি, শাক, ফল ও মুরগি ব্যবসায়ীদের স্থানীয় সমবায় রতন রাইস মিলের মাঠে ব্যবসা স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নেয় সেনাবাহিনীর পরিদর্শন দল। কিন্তু ব্যবসা প্রতিষ্ঠান স্থানান্তর না করে প্ররোচনায় প্রতিটি দোকান বন্ধ রাখে ব্যবসায়ীরা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, ১৬ মে শনিবার সকাল ১০টায় পুলহাট নতুন বাজারের সকল সবজি, শাক, ফল ও মুরগির দোকানগুলো বন্ধ রয়েছে। বাজারের এক ব্যবসায়ী বলেন, সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে পুলহাট নতুন বাজারের কাচামাল ব্যবসায়ীদের সাথে সাক্ষাতে এসে কথা বলেন সেনাবাহিনীর উর্দ্ধতন কর্মকর্তা মেজর তুষার, ক্যাপ্টেন অলিসহ অন্যান্য সদস্যরা। এতে নিদের্শনা মোতাবেক বাজার সমিতি ও ব্যবসায়ীরা যৌথ সভায় ঐক্যমতে পৌছেন যে, বাজারটিকে জরুরীভিত্তিতে সমবায় রতন রাইস মিলে স্থানান্তরিত করতে হবে।

কিন্তু গত শুক্রবার সন্ধ্যার পর জানা গেছে, কে বা কাদের প্ররোচণায় ব্যবসায়ীরা বাজার স্থানান্তর না করে প্রতিটি দোকান বন্ধ রাখেন বলে বাজার সূত্রে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে স্থানীয় জনগণ সামাজিক নিরাপত্তা বজায় রাখার স্বার্থে জেলা প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এ ব্যাপারে স্থানীয় পৌর ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আশরাফুল আলম রমজান বলেন, সেনাবাহিনীর বিশেষ দল স্থানীয় কাউন্সিলর হিসেবে বাজার ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব আমাকে দেন। তারপর বাজার সমিতির সদস্যদের সাথে নিয়ে নোভেল ভলান্টিয়ারদের সহযোগিতায় সমবায় রতন রাইস মিলে বাজারটি স্থানান্তরে সম্পূর্ণভাবে প্রস্তুতি নেওয়া হয়।

গত শুক্রবার হতে স্থানান্তরিত বাজারে দোকান নেওয়ার কথা থাকলেও কাচাবাজার ব্যবসায়ীরা শনিবার পর্যন্ত দোকানপাট স্থানান্তর করেন নি। বিষয়টি সেনাবাহিনীর উর্দ্ধতন কর্মকর্তাকে জানানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য