কুড়িগ্রামের উলিপুরে বুড়িতিস্তা নদীর উপর পাকিস্তান আমলে নির্মিত ব্রীজটি হুমকির মুখে রয়েছে। যেকোন মহুর্তে ব্রিজটি সম্পূর্ণ ভেঙ্গে পড়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে পৌরসভাসহ ২ ইউনিয়নের ১০ গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ। এ পরিস্থিতিতে এলাকাবাসী রাস্তার দুই পার্শ্বে বাঁশ বেঁধে যান-চলাচল বন্ধ করে দিলেও মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে চলছে অনেকে। ফলে যেকোন মহুর্তে বড় ধরনের দূর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

জানা গেছে, জেলার উলিপুর পৌরসভার নারিকেলবাড়ি গ্রামে পাকিস্তান আমলে বুড়িতিস্তা নদীর উপর ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়। গত বছর বন্যার সময় ব্রিজটি আংশিক ক্ষতিগ্রস্থ হলেও পৌর কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারণে তা মেরামত করা হয়নি। ফলে বর্তমানে এ সড়কে চলাচলকারী হাজার হাজার মানুষকে সীমাহীন দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, গত বছরেই ব্রিজটির নিচের মাটি সরে গিয়ে গভীর গর্তের সৃষ্টি হয়ে ফ্লোরের পাকা অংশসহ উইং ওয়ালের ফাটল ধরে। কিন্তু উলিপুর পৌরসভা কর্তৃপক্ষকে বার বার বলার পরেও শুষ্ক মৌসুমে তা মেরামতের কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি।

ফলে গত কয়েকদিনের বৃষ্টির পানির তোড়ে উইং ওয়ালের ইট বিচ্ছিন্ন পড়লে ব্রিজের পাটাতন ভেঙ্গে গিয়ে মাটির উপর আটকে আছে। ফলে যেকোন মহুর্তে ব্রিজটি ভেঙ্গে পড়ে প্রাণহানির আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী। ওই এলাকার খামার গ্রামের মোজাম্মেল হক(৫৫), আবদুর রশিদ(৭০), আবদুর রাজ্জাক(৬৫)সহ অনেকে জানান, বহু বছর আগে ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়।

প্রতিদিন ব্রিজের উপর দিয়ে পূর্ব ছড়ারপাড়, পিয়াদা পাড়া, সটিবাড়ি, চরপাড়া, খেওয়ার পাড়, হিন্দুপাড়া, মাঝিপাড়া, রায়পাড়া, বকুলতলা, খামার ভাটিয়াপাড়া, গুনাইগাছ ইউনিয়নের কালুডাঙ্গা, থেতরাই ইউনিয়নের হারুননেফড়া গ্রামসহ ১০/১২টি গ্রামের মানুষসহ শতশত যানবাহন ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। এ পরিস্থিতিতে এসব এলাকার হাজার হাজার মানুষকে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

উলিপুর পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী মাহবুবুল আলম বলেন, একজন উপ-সহকারী প্রকৌশলীকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। ব্রিজ দেখার পর বলতে পারবো, কি করা যাবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য