দিনাজপুর সংবাদাতাঃ বিরলের ফরক্কাবাদে এক ইউপি সদস্য ও তাঁর স্ত্রীকে হত্যার চেষ্টা করেছে প্রতিপক্ষরা। ইউপি সদস্য ও তাঁর স্ত্রীকে গুরুতর আহত ও জখমের ঘটনায় থানা পুলিশ প্রতিপক্ষের একজনকে আটক করেছে। ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে।
থানার মামলা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ফরক্কাবাদ ইউপি’র ৮ নং ওয়ার্ড সদস্য শাহীন আলম (৪০) কে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে লাঠি-সোডা ও দেশীয় ধারালো অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হত্যা চেষ্টা করে প্রতিপক্ষরা। তিনি চককাঞ্চন (নতুনপাড়া) গ্রামের আবদুল কাদের এর পুত্র।

গতকাল দুপুরে একই এলাকার মৃত শহরাব আলীর পুত্র গ্রাম পুলিশ শরিফুল ইসলাম (৪৫), হযরত আলী হুজুর পুত্র দফির উদ্দীন (৩০) ও কফিল উদ্দীন (২৭)সহ এজাহার নামীয় ০৮জন দলবদ্ধভাবে চককাঞ্চন বাজার হতে শাহীন আলম বাড়ী ফেরার পথে শরিফুলের মুদি দোকানের সামনে পথরোধ করে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালিয়ে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে। এ সময় শাহিনের স্ত্রী পারভীন বেগম (৩২) এগিয়ে এলে তাঁকেও হাসুয়াসহ ধারালো অস্ত্রে রক্তাক্ত জখম করে।

আহতদের আত্মচিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে ইউপি সদস্য শাহীনকে খুন, জখম করে চিরতরে শেষ পর্যন্ত ফেলার হুমকি দিয়ে প্রতিপক্ষরা চলে যায়। প্রতিবেশিরা গুরুতর আহত ইউপি সদস্য শাহীন ও তার স্ত্রীকে দিনাজপুর এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে। সন্ধ্যায় আহত শাহীনের পিতা বিরল থানায় বাদী হয়ে সংশ্লিষ্ট ধারায় একটি মামলা দায়ের করে।

থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ শেখ নাসিম হাবিব জানান, ঘটনার সাথে জড়িত এজাহারনামীয় আসামি দফির উদ্দীনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে তাঁকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য