ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন রোববার করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে দেশব্যাপী জারি করা লকডাউন ধাপে ধাপে শিথিল করার পরিকল্পনা ঘোষণা করেছেন। টেলিভিশনে দেয়া ভাষণে তিনি এ পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করেন।

পরিকল্পনা অনুযায়ী আগামী ১ জুন থেকে স্কুল ও দোকানসমূহ খুলতে শুরু করবে। আকাশ পথে যারা বিদেশ থেকে ব্রিটেনে ঢুকবে তাদেরকে অবশ্যই কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

জনসন বলেন, চলতি সপ্তাহেই লকডাউন তুলে নেয়ার সময় আসেনি। দ্রুত তা তুলে নেয়া হবে ‘পাগলামি’।

ধাপে ধাপে লকডাউন তুলে নেয়ার ঘোষণা দিয়ে ৫৫ বছর বয়সী জনসন আরো বলেন, যারা বাড়ি থেকে কাজ করতে পারবে না তাদেরকে কর্মস্থলে যেতে উৎসাহিত করবে সরকার। উদাহরণ হিসেবে তিনি কলকারখানা ও নির্মাণ কাজের কথা উল্লেখ করেন।

দ্বিতীয় পর্যায়ে ১১ বছর বয়স পর্যন্ত শিশুরা স্কুলে ফিরতে পারবে এবং অতি জরুরি নয় এমন দোকানপাটও পুনরায় খুলে দেয়া হবে।

জুলাই নাগাদ আতিথেয়তা দেয়া হয় এমন ইন্ড্রাষ্ট্রিসহ পাবলিক প্লেসসমূহ খুলে দেয়া হবে। যেমন পার্কের ক্যাফেগুলোর কথা বলা হয়েছে।

কিন্তু আগামী অনেক মাসেও পানশালাগুলো খুলে দেয়া হবে না এবং বড়ো শিশুদের স্কুল সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।

এদিকে নতুন চালু করা সতর্ক পদ্ধতি দিয়ে সংক্রমণ হার খুব নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হবে।

জনসন আরো বলেন, যদি প্রাদুর্ভাব দেখি, সমস্যা দেখি আমরা পিছু হটতে দ্বিধা করবো না।

ব্রিটেনে প্রায় সাত সপ্তাহ ধরে লকডাউন চলছে। করোনায় দেশটিতে এ পর্যন্ত মারা গেছে ৩১ হাজার ৮০০ লোক যা যুক্তরাষ্ট্রের পর সবচেয়ে বেশি।

বরিস জনসনও করোনায় আক্রান্ত হন এবং তিনি এক সপ্তাহ হাসপাতালে থেকে চিকিৎসা নেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য