দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুর জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় নতুন আরো ৯ জন করেনা রোগি শনাক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে দিনাজপুর জেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাড়িয়েছে ৫০ জনে। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে সদর উপজেলায় ৩ জন, বীরগঞ্জে ৪ জন ও বোচাগঞ্জে দুইজন। এছাড়া ৬ জন সুস্থ, মৃত্যু হয়েছে একজনের ও হোম আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে ৪০ জনকে।

এর মধ্য দিয়ে জেলার ১৩টি উপজেলার মধ্যে ১২টি উপজেলায় করোনা রোগি শনাক্ত হলো। এখন শুধুমাত্র খানসামা উপজেলা এখনো করোনামুক্ত আছে।

দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল কুদ্দুস রবিবার (১০ মে) রাত সাড়ে ৯টায় গত ২৪ ঘন্টায় নতুন আরো ৯ জন করোনায় আক্রান্তের খবরটি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, রবিবার আরটি পিসিআর ল্যাব হতে ৯৪টি নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ৯ জনের নমুনায় করোনা পজিটিভ, একটি ফলোআপ নমুনার ফলাফল পজিটিভ ও ৮৪টি নমুনার ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। এ নিয়ে দিনাজপুর জেলায় করোনায় (কোভিট-১৯) প্রমানিত রোগির সংখ্যা ৫০ জন হলো। আক্রান্ত ৫০ জনের মধ্যে পুরুষ ৩৭ জন, নারী ১০ জন ও শিশু ৩ জন।

সিভিল সার্জন জানান, এ পর্যন্ত জেলার ১৩টি উজেলার মধ্যে ১২টি উপজেলায় করোনা আক্রান্ত রোগি শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে সদর উপজেলায় ১৩ জন (মৃত একজনসহ), কাহারোলে ৭ জন, বিরলে দুইজন, বোচাগঞ্জে ৪ জন, পার্বতীপুরে ৫ জন, ফুলবাড়ীতে একজন, নবাবগঞ্জে ৪ জন, হাকিমপুরে দুইজন, ঘোড়াঘাটে ৪ জন, চিবিরবন্দরে একজন ও বিরামপুর উপজেলায় ৩ জন রয়েছে। আর সুস্থ হয়েছেন ৬ জন। যার মধ্যে সদর উপজেলায় দুইজন, ফুলবাড়ীতে একজন, পার্বতীপুরে একজন, নবাবগঞ্জে একজন ও কাহারোল উপজেলায় একজন। আর বর্তমানে হোম আইসোলেশনে রয়েছেন ৪০ জন।

তিনি জানান, এ পর্যন্ত হোম আইসোলেশনে প্রেরণ করা হয়েছে একজনকে, দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে দুইজনকে ও একজনের মৃত্যু হয়েছে।

সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল কুদ্দুস আরো জানান, এ পর্যন্ত ১১০৬টি নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবেরটরীতে প্রেরণ করা হয়েছে। এর মধ্যে ফলাফল এসেছে ১০৪০টি নমুনার। এছাড়া ১০ মে রবিবার ৮৩টি নমুনা পরীক্ষার জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের আরটি পিসিআর ল্যাবেরটরীতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এদিকে দিনাজপুর জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় ২৪৬ জনসহ এ পর্যন্ত ৬৪০০ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে প্রেরণ করা হয়েছে। আর এ পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৪৪৬১ জন এবং বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ১৯৩৯ জন। এছাড়া এ পর্যন্ত প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে প্রেরণ করা হয়েছে ২১৯ জনকে এবং প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন হতে ১৩৯ জন ছাড় পেয়েছেন বলে জানান সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল কুদ্দুস।

উল্লেখ্য, দিনাজপুরে গত ১৫ এপ্রিল মঙ্গলবার প্রথম ৭ জন করোনা রোগি শনাক্ত হয়। ১৬ এপ্রিল বুধবার একজন, ১৭ এপ্রিল বৃহস্পতিবার একজন, ১৮ এপ্রিল শুক্রবার একজন, ২০ এপ্রিল রবিবার একজন, ২১ এপ্রিল মঙ্গলবার দুইজন, ২৫ এপ্রিল শনিবার একজন, ২৭ এপ্রিল সোমবার হাকিমপুরে একজন, ২৯ এপ্রিল বুধবার ঘোড়াঘাটে একজন, ৩০ এপ্রিল বৃহস্পতিবার হাকিমপুর উপজেলায় আরো একজন, ২ মে শনিবার কাহারোলে ৩ জন, ৩ মে রবিবার পার্বতীপুরে একজন, ৫ মে মঙ্গলবার ৭ জন (কাহারোলে ৩ জন, পার্বতীপুরে ৩ জন ও নবাবগঞ্জ উপজেলায় একজন), ৬ মে বুধবার দিনাজপুর সদর উপজেলায় পৌর শহরে দুইজন, ৭ মে বৃহস্পতিবার ৫ জন, ৮ মে শুক্রবার বিরল উপজেলায় দুইজন, ৯ মে শনিবার বিরামপুর উপজেলায় ৩ জন ও সর্বশেষ ১০ মে রবিবার নতুন আরো ১০ জন (সদরে ৩, বীরগঞ্জে ৪ ও বোচাগঞ্জ উপজেলায় ২ জন) করোনা আক্রান্ত রোগি শনাক্ত হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য