দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ফুলবাড়ীতে ছোট যমুনা নদীর বালু চাপা অবস্থায় শামিউল শাহ (৭) নামের তৃতীয় শ্রেণির এক শিশু শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

গত বুধবার (৬ মে) রাত সাড়ে ১০ টায় উপজেলার ৭ নং শিবনগর ইউনিয়নের গঙ্গাপ্রসাদ এলাকার ভুট্টাক্ষেত সংলগ্ন ছোট যমুনা নদীর পাড়ে বালু চাপা অবস্থায় ওই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

শামিউল শাহ উপজেলার ৭ নং শিবনগর ইউনিয়নের পলি শিবনগর গ্রামের খতিবুর রহমানের ছেলে এবং পলি শিবনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

এ ঘটনায় পলি শিবনগর গ্রামের আইয়ুব আলীর ছেলে রিপন শেখ (২৫) নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ।

নিহত শিশু শামিউল শেখের পরিবার সূত্রে জানা যায়, শামিউল শেখ বিকেলে খেলার জন্য বাড়ী থেকে বের হয়ে সন্ধ্যা পর্যন্ত ফিরে না আসায় পরিবার লোকজনসহ গ্রামবাসী তাকে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। নদীতে ডুবে তার মৃত্যু হতে পারে আশঙ্কা থেকে পার্শ্ববর্তী গঙ্গাপ্রসাদ এলাকার ছোট যমুনা নদীর পাড়ে খোঁজাখুঁজি শুরু করার একপর্যায়ে পর্যন্ত রাত সাড়ে ১০ নদীর বালু চাপা অবস্থায় শামিউল শেখের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

পরে থানা পুলিশকে খবর দেওয়া হলে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এ সময় রিপন শেখের গতিবিধিসহ আচার আচরণ দেখে গ্রামবাসীর সন্দেহ হলে পুলিশকে খবর দেন। পরে বৃহস্পতিবার ভোর ৬ টায় রিপন শেখকে আটক করা হয়।

থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ (ওসি) মো. ফখরুল ইসলাম বলেন, এ ব্যাপারে শিশু শামিউল শেখের দাদা মোজাফ্ফর হোসেন বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। ওই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে রিপন শেখকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ওসি ফখরুল ইসলাম আটক রিপনের উদৃতি দিয়ে জানান, রিপন শেখ পুলিশের কাছে স্বীকার করে করে জানিয়েছে, শিশু শামিউল শেখ তাকে অশ্লীলভাষায় গালি দেওয়ার ক্ষোভ থেকেই ভুট্টা ক্ষেতে নিয়ে শামিউল শেখকে গলাটিপে হত্যা করেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য