দিনাজপুর সংবাদাতাঃ বিরলের ভারত সীমান্তবর্তী গ্রামে পূর্ব বিরোধকে কেন্দ্র করে মারপিটের এক পর্যাযে প্রতিপক্ষের আঘাতে নিহত হয়েছে এক ব্যাক্তি। সে ভান্ডারা ইউপির বালান্দোর (জলপাড়া) গ্রামের মৃত আকালু মোহাম্মদের পুত্র নুরুল ইসলাম (৫০)। ঘটনায় পুলিশ রাতেই প্রতিপক্ষ তোফাজ্জল হোসেন ঝুলু (৪৬) ও তাঁর স্ত্রী মঞ্জুয়ারা বেগম (৪২) দম্পতিকে আটক করেছে। থানায় মামলা রুজু ও লাশের ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের নিকট লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, গত রোববার দিবাগত রাত সোয়া ৯ টায় নুরুল ইসলাম স্থানীয় জামে মসজিদে তারাবির নামাজ আদায় করে নিজ বাড়ীতে ফেরার সময় নলকূপের পানি নিস্কাষণের তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পূর্ব বিরোধের জের ধরে আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা একই গ্রামের মৃতঃ তফিল উদ্দীনের পুত্র প্রতিপক্ষ তোফাজ্জল হোসেন ঝুলু (৫৫) এবং তাঁর লোকজন নুরুলের উপরে চোড়াও হয়ে বেদম প্রহার করে গুরুতর আহত করে।

নুরুলের চিৎকারে স্থানীয়রা এসে গুরুত্বর অবস্থায় উদ্ধার করে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে রাত সাড়ে ১১ টায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করে। ঘটনায় থানা পুলিশ রাতেই প্রতিপক্ষ তোফাজ্জল হোসেন ঝুলু (৪৬) ও তাঁর স্ত্রী মঞ্জুয়ারা বেগম (৪২) কে আটক করেছে।

বিরল থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ নাসিম হাবিব জানান, ঘটনার সাথে জড়িত এক দম্পত্তিকে আটক করা হয়েছে। সোমবার সকালে হত্যার ঘটনায় মৃত নুরুল ইসলামের পুত্র রেজাউল ইসলাম বাদী হয়ে ০৬ জনকে আসামী করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে লাশের ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য