ভারতের জম্মু ও কাশ্মীরের কুপওয়ারা জেলায় গোলাগুলিতে ভারতীয় সেনাবাহিনীর একজন কর্নেল ও একজন মেজরসহ নিরাপত্তা বাহিনীর পাঁচ সদস্য নিহত হয়েছেন।

শনিবার শুরু হওয়ার পর রাতভর এ গোলাগুলির ঘটনায় এক পুলিশ কর্মকর্তা ও সেনাবাহিনীর দুই সৈনিকও নিহত হয়েছেন বলে এনডিটিভি জানিয়েছে।

সরকারি এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কুপওয়ারা জেলার হান্দোয়ারা এলাকার চাঙ্গিমুল্লায় ‘সন্ত্রাসীরা’ একটি বাড়িতে বেসামরিকদের জিম্মি করে রেখেছে, গোয়েন্দা সূত্রে এমন খবর পেয়ে সেখানে সন্ত্রাস-বিরোধী অভিযানে যায় ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনী এবং জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশের একটি যৌথ দল।

শ্রীনগর থেকে প্রায় ৭০ কিলোমিটার দূরে চালানো ওই অভিযানে দলটি বেশ কয়েকজন বেসামরিককে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। যৌথ বাহিনীর অভিযানে এ সময় দুই ‘সন্ত্রাসী’ও নিহত হয়।

“সেনাবাহিনী ও পুলিশের পাঁচ জনের একটি দল বেসামরিকদের বের করে আনতে সন্ত্রাসীদের অধিকৃত টার্গেট এলাকায় প্রবেশে করে। তারা সফলভাবে বেসামরিকদের মুক্ত করে আনে। এই প্রক্রিয়া চলার সময় সন্ত্রাসীরা ওই দলটিকে লক্ষ্য করে ব্যাপক গুলিবর্ষণ শুরু করে,” বিবৃতিতে এমনটি বলা হয়েছে।

সৈন্য ও নিরাপত্তা সদস্যরা নিহত হওয়ায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।

এক টুইটে তিনি বলেছেন, “হান্দোয়ারায় আমাদের সৈন্য ও নিরাপত্তা সদস্য হারানোর ঘটনা অত্যন্ত উদ্বেগজনক ও বেদনাদায়ক। সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে তারা অসীম সাহস দেখিয়েছেন এবং দেশের সেবায় সর্বোচ্চ আত্মত্যাগ করেছেন। আমরা কখনোই তাদের বীরত্ব ও ত্যাগের কথা ভুলবো না।”

ভারতীয় পুলিশের মহাপরিচালক দিলবাগ সিং, জম্মু ও কাশ্মীরের ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা ইমতিয়াজ হুসেইন এবং জম্মু ও কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আব্দুল্লাহও সৈন্য ও নিরাপত্তা সদস্য নিহত হওয়ায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য