দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ত্রাণের নামে কোন চাঁদাবাজী করা যাবে না উল্লেখ করে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেছেন, করোনা সংক্রমণের অজুহাতে দিনাজপুরের মানুষের কাছে চাঁদা চাওয়ার বিষয়টিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের কারণে খাদ্য সংকট হবে না সাফ জানিয়ে দিয়েছেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দেশে পর্যাপ্ত পরিমাণ খাদ্য মজুত আছে। তিনি বলেন, জনগণের ত্রাণ লাগবে, টাকা লাগবে সরকারকে জানাবেন। প্রয়োজন হলে আমাকে জানাবেন, আমি ব্যবস্থা করবো। কেউ যদি স্ব ইচ্ছায় কিছু দেয় সেটা আলাদা কথা। হুইপ ইকবালুর রহিম বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে ব্যবসায়ীদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় তারা এমনিতেই কষ্টে আছে। তাদের কাছে মোবাইল করে কিছু চাওয়াটা আমরা যারা রাজনীতি করি আমাদের বিব্রতকর অবস্থার মধ্যে পড়তে হয়।

এতে করে শেখ হাসিনা সরকারের সুনাম ও ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়। এগুলো থেকে বিরত থাকলে আমাদের রাজনীতির জন্য ভালো হয়, শেখ হাসিনার রাজনীতির জন্য ভালো হয়। তিনি বলেন, ত্রাণ নিয়ে কোন অনিয়ম বরদাস্ত করা হবে না। আমাদের সক্ষমতা আছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সক্ষমতা আছে। এই সক্ষমতা দিয়ে আমাদের বর্তমান পরিস্থিতি উত্তোরণ করবো ইনশাআল্লাহ।

২৭ এপ্রিল সোমবার দিনাজপুর সদর উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত করোনা বিষয়ক সাধারণ সচেতনতা এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কর্মহীন মানুষের মাঝে ত্রাণ কার্যক্রম সম্পর্কিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি এ কথাগুলো বলেন।

করোনারোধে সরকারের নেয়া বিভিন্ন উদ্যোগের কথা উল্লেখ করে হুইপ ইকবালুর রহিম বলেন, কীভাবে এই ভাইরাস থেকে আমরা মানুষকে মুক্ত রাখতে পারি সেখানে প্রতিদিনই সরকার সকল পদক্ষেপ নেয়া এবং তা প্রচারেরও ব্যবস্থা করে যাচ্ছে। আমাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আইইডিসিআর এই ব্যাপরে যথেষ্ট সতর্ক এবং তারা বিষয়টি নিয়ে গবেষণা করে যাচ্ছে। সেই দিক থেকে দিনাজপুরের মানুষ আমরা এখনও মোটামুটি ভালো আছি।

তবে জেলার বাহির থেকে যারা আসছেন, তারা অনেক সময় এর বাহক হয়ে থাকেন। যারা জেলার বাহির থেকে আসছেন তাদের প্রতি আমাদের আহ্বান থাকবে তারা নিজের জন্য, নিজের পরিবারের সকলের নিরাপত্তার জন্য নিজেরা নিরাপত্তা থাকবেন এবং পরিবারের সদস্যদের নিরাপদে রাখবেন। তার মাধ্যমে যাতে পরিবারের সদস্য ও সাধারণ মানুষ কেউ যেন সংক্রামিত না হয়, সেই ব্যাপারে সকলকেই সতর্ক থাকতে হবে।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাগফুরুল হাসান এস.এইচ.এম মাগ্ফুরুল হাসান আব্বাসীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ইমদাদ সরকার, শহর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রায়হান কবীর সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক এস.এম. খালেকুজ্জামান রাজু, সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেসমিন আরা জোৎ¯œা প্রমুখ। মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ৮নং শংকপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ইসহাক চৌধুরী। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ক খ ম আলাওল হাদী।

আলোচনা সভা শেষে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি কর্মহীন মানুষের মাঝে বিতরণের জন্য ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের হাতে ত্রাণ সামগ্রী তুলে দেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য