দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের বীরগঞ্জে করোনাভাইরাসের প্রভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে সকল ধরণের পণ্যের দাম। এতে করে চরম বেকায়দায় পড়েছে নিম্ন আয়ের মানুষসহ মধ্যবিত্তরা। উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজার ঘুরে জানা গেছে,সপ্তাহের ব্যবধানে মোটা চলের দাম বেড়েছে কেজিপ্রতি ১০ টাকা জিরা সাইলসহ অন্য চালের দাম বেড়েছে কেজিপ্রতি ৮-১০ টাকা,পেঁয়াজ কেজিপ্রতি দাম বেড়েছে ২৫ -৩০ টাকা বেড়ে , আলুর কেজিপ্রতি দাম বেড়েছে ১০ টাকা।

এছাড়া ও মসলা জাতীয় পণ্যের দামও আকাশ ছোঁয়া হয়ে গেছে। বীরগঞ্জ পৌর বাজারের চাল ব্যবসায়ী দীনেশ বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে ব্যবসা হচ্ছে না বললেই চলে। যানবাহন বন্ধ থাকায় বাজারে চালের সরবরাহ কম। অধিক লাভের আশায় বড়ো বড়ো মিলাররা গুদামে চাল রেখে বাজারে চাল ছাড়ছেন না। তাই বেড়েই চলছে খুচরা বাজারে চালের দাম।

ক্রেতা বিরেন্দ্র নাথ সহ আরো অনেকে বলেন, করোনাভাইরাসের নামে যদি বাজারের এই অবস্থা হয় আসন্ন রমজানকে ঘিরে তাহলে বাজারের আর কি অবস্থা হরে পারে! তাহলে আমরা মধ্যবিত্ত পরিবারের লোকজনরা কোথায় যাব। তাই বাজারকে স্বাভাবিক অবস্থানয় নিয়ে আসতে হলে প্রশাসনকে নিয়মিত বাজার মনিটরিং করতে হবে এবং অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে।

বীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ইয়ামিন হোসেন বলন,আমি নিজেও মাঝে মধ্যে বিভিন্ন বাজার মনিটরিংয়ে যাচ্ছি। এছাড়াও বাজার মনিটরিং দলকে সঙ্গে নিয়েও বাজারকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে চেষ্টা করছি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য