রংপুর জেলার তারাগঞ্জ উপজেলায় ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) পণ্য বিক্রি শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) সকাল সাড়ে আটটা থেকে উপজেলা সদরের মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠের কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার চত্বরে ট্রাকে এ কার্যক্রম শুরু হয়।

সকাল থেকে পণ্য কিনতে ভিড় করেন ক্রেতারা। ট্রাকের একদিকে পুরুষ ক্রেতা ও অন্যদিকে নারী ক্রেতারা সারিবদ্ধ হয়ে দাঁড়িয়ে এ পণ্য ক্রয় করেন। তবে বরাদ্দ কম হওয়ায় অল্প সময়ের মধ্যেই এইদিনের বরাদ্দ করা পণ্য শেষ হয়ে যায়। দীর্ঘ সময়ে লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেও পণ্য না পেয়ে খালি হাতে বাড়ি ফিরে যায়।

তারাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আমিনুল ইসলাম জানান,মঙ্গলবার টিসিবি’র পণ্য বিক্রি শুরু হয়েছে। উপজেলা সদরে একজন ডিলার। তিনি মঙ্গলবার থেকে পণ্য বিক্রি শুরু করেছে। চাহিদা থাকলে এ কার্যক্রম চলবে।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে টিসিবি’র পণ্য কিনতে আসা সবুজ মিয়া জানান, দীর্ঘ সময়ে লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে দুই লিটার সয়াবিন তেল,এক কেজি চিনি, এক কেজি ছোলা ও এক কেজি মসুল ডাল কিনেছি। বাজার মূল্যের চেয়ে দাম কম। দেরিতে হলেও উপজেলা সদরের প্রাণ কেন্দ্রে এ বিক্রি কার্যক্রম চালু হওয়ায় নিম্ন আয়ের মানুষেরা কিনতে পেয়ে খুশি। তবে বরাদ্দ কম হওয়ায় অনেকে তা কিনতে না পেরে ফেরত গেছে। একই কথা বলেল,পণ্য কিনতে আশা রাজ্জাকুল,শামিউল,সেফাতুল সহ কয়েকজন।

টিসিবির পণ্য কিনতে আসা আলী জানান, দীর্ঘ সময়ে লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেও পণ্য পেলাম না,আমার সিরিয়াল আসার আগে পণ্য শেষ।

টিসিবির ডিলার আলহাজ আব্দুল হাই জানান,মঙ্গলবার থেকে পণ্য বিক্রি শুরু হয়েছে। আমি বরাদ্দ পেয়েছি,১(এক)মেঃ টন সোয়াবিন তেল,১(এক)মেঃ টন চিনি, ৫০০ কেজি ছোলা ও ১৫০ কেজি মসুর ডাল। এসব পণ্য তুলে সকালে ট্রাক যোগে বিক্রি কালে ক্রেতারা লাইনে দাঁড়িয়ে কিনতে শুরু করে। চাহিদা বেশি থাকায় দুপুরের মধ্যে পণ্য বিক্রি শেষ হয়ে যায়। ডিলার আব্দুল হাই আরও জানান,সোয়াবিন তেল প্রতি লিটার ৮০ টাকা,চিনি প্রতিকেজি ৫০টাকা,ছোলা প্রতিকেজি ৬০ টাকা ও মসুর ডাল প্রতিকেজি ৫০ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য