দিনাজপুর সংবাদাতাঃ বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস মহামারী রূপ ধারণ করায় বাংলাদেশে এ ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সতর্কতা ও সচেতনমূলক পদক্ষেপের অংশ হিসেবে সরকারের পাশপাশি কাজ করছেন বিভিন্ন
স্বেচ্ছাশ্রম বা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন গুলো।

করোনা সংকট পুর্ন মুহুর্তে চিরিরবন্দর উপজেলার ১২ টি ইউনিয়নের কর্মহীন দুস্থ্য অসহায় মানুষদের কথা চিন্তা করে সেচ্ছাসেবী সংগঠন “পাশে দাঁড়াও” আগামী ১ মাসের জন্য ফ্রী এ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস উদ্ভোধন করলো।

আজ ২০ শে এপ্রিল বিকাল ৫ টায় চিরিরবন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর প্রধান ডাঃ আজমল হক এই সার্ভিসের কার্যক্রম উদ্ভোধন করেন।

ডাঃ আজমল হক বলেন যেহেতু করোনা প্রভাব কতোদিন স্থায়ী থাকবে সেটা কারই জানা নেই, তাই সেচ্ছাসেবী সংগঠন “পাশে দাঁড়াও” এর মহতী কার্যক্রমকে সাধুবাদ জানাই।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ” পাশে দাঁড়াও” সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা চিরিরবন্দর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লায়লা বানু। তিনি বলেন উপজেলার ১২ টি ইউনিয়নের কর্মহীন দুস্থ্য অসহায় মানুষদের কথা চিন্তা করে আমরা আগামী এক মাসের জন্য সেচ্ছায় এবং বিনা মুল্যে এ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস এর ব্যাবস্থা করেছি। এসময় তিনি সমাজের বিত্তবান মানুষদের অসহায় পরিবার গুলোর পাশে দাড়ানোর অনুরোধ করেন।

” পাশে দাঁড়াও ” এর আহব্বায়ক জাতীয় দৈনিক আমাদের সময় প্রত্রিকার চিরিরবন্দর প্রতিনিধি সাংবাদিক মাহাফুজুল ইসলাম আসাদ বলেন, করোনা মহামারীতে আমরা চিরিরবন্দর উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নের তৃনমুল পর্যায়ের মানুষদের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার লক্ষে আগামী এক মাস বিনামূল্যে এ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস ও ঘরে বসেই মোবাইল ফোনে চিকিৎসা পরামর্শের জন্য হেল্প সার্ভিস হটলাইনের ব্যবস্থা করেছি। যাহার হটলাইন নম্বর ০১৭৯৫৩১০৫৪৭।

পাশাপাশি আমরা উপজেলার ১২ টি ইউনিয়নের “পাশে দাঁড়াও ” এর শতাধিক সেচ্ছাসেবক করোনা সচেতনতায় নিরলস ভাবে কাজ করতেছি।

এসময় অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এভারগ্রীন ক্লিনিকের পরিচালক ডাঃ ওয়াসিম উদ্দিন শাহ, “পাশে দাড়াও” এর সদস্য সচিব মোঃ মাজেদুল ইসলাম প্রমূখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য