আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধাঃ চলতি বোরো মৌসুমে চলনবিল এলাকায় কৃষি উৎপাদন সচল রাখতে এবং উৎপাদিত ধান কাটা এবং মাড়াই কাজের জন্য প্রশাসনের উদ্যোগে বিশেষ ব্যবস্থায় গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ থেকে কৃষি শ্রমিকের ২২ জনের একটি প্রাথমিক দল পাঠানো হয়েছে।

সোমবার দুপুরে গোবিন্দগঞ্জ থেকে নাটোর জেলার সিংড়া থানার চলনবিল অঞ্চলে প্রথম এ কৃষি শ্রমিকের দল পাঠানো হয়।

এর আগে গোবিন্দগঞ্জ থানা মসজিদ চত্বরে আগত কৃষি শ্রমিকদের প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। এরপর বর্তমান করোনা পরিস্থিতি নিয়ে শ্রমিকদেরকে স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক নির্দেশনা দেয়া হয়। এছাড়াও শ্রমিকদের মাঝে দুইটি করে উন্নতমানের মাস্ক বিতরণ করা হয়। পরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে দেয়া একটি বিশেষ বাসে করে শ্রমিকরা চলনবিল এলাকায় রওনা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামকৃষ্ণ বর্মন, থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম মেহেদী হাসান, টিআই নূর রুহুল, ওসি তদন- আফজাল হোসেন, উপজেলা কৃষি অফিসার খালেদুর রহমান প্রমুখ।

জানা গেছে, চলতি বোরো মৌসুমে ভয়াবহ করোনা পরিসি’তিতে জেলায় জেলায় লকডাউন থাকায় শষ্যভান্ডার খ্যাত চলনবিল অঞ্চলে কৃষি শ্রমিকের চরম সংকট দেখা দিয়েছে। দেশে খাদ্য সরবরাহ ঠিক রাখতে এসব এলাকায় সময়মত ধান কাটা প্রয়োজন। তা না হলে আসন্ন সম্ভাব্য ঝড়, বৃষ্টি, বন্যা সহ নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগে তা ব্যাহত হতে পারে এমন আশংকায় সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য বিভিন্ন জেলায় নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে।

গোবিন্দগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) একেএম মেহেদী হাসান জানান, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় এবং পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলামের সহযোগীতায় উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তৈরীকৃত তালিকা থেকে বাছাই করা ২২জন ধানকাটা শ্রমিককের প্রথম একটি দলকে চলনবিল অঞ্চলে ধানকাটার কাজে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য