দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ঘোড়াঘাটে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির (পুষ্টি) ৮৬৯ বস্তা চাল উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। পরে তা ডিলারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আগামীকাল এসব চাল পুষ্টি কার্ডধারীদের মাঝে প্রশাসনের উপস্থিতিতে বিতরণ করা হবে।

আজ রবিবার (১৯ এপ্রিল) দুপুরে ঘোড়াঘাট উপজেলার সিংড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নানের স্ত্রী ও চালের ডিলার রহিমা বেগমের বাগান বাড়ি মুরগীর খামার থেকে এই চালগুলো উদ্ধার করা হয়। এই সময় সেখানে ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানম এবং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিরুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

হাকিমপুর সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আখিউল ইসলাম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিংড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নানের বাগান বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। এই সময় সেখান থেকে বেশ কিছু সরকারি চাল জব্দ করি। এগুলো ডিলারের জিম্মায় রেখে দিয়েছি। তবে তারা বলছে এগুলো ‘পুষ্টি কর্মসূচির চাল’। আমরা তথ্যগুলো যাচাই করছি। তবে পুষ্টি কার্ডধারী যারা রয়েছেন তারাই যেন এই চাল পায় তাই আগামীকাল প্রশাসনের উপস্থিতিতে তা বিতরণ করা হবে।

তিনি আরো জানান, ত্রাণ নিয়ে বিভিন্ন স্থানে নানারকম অনিয়ম হচ্ছে। এটি যাতে ঘোড়াঘাট এলাকায় না ঘটে এবং সঠিক মানুষগুলো যেন সরকারি সহযোগিতা পায় তাই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওয়াহীদা খানম জানান, আমি সহকারী পুলিশ সুপারের ফোনে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসেছি। দেখতে পেলাম খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর বেশ কিছু চাল প্যাকেট অবস্থায় রয়েছে। এই চালগুলো ১০ টাকা কেজি দরে ৩০ কেজি করে কার্ডধারীদের দেওয়া হয় বছরে পাঁচ মাস ডিলারের মাধ্যমে।

তিনি আরো জানান, আজকের চালগুলো আমরা আগামীকাল কাগজপত্র পরীক্ষা করে কার্ডধারীদের মাঝে বিতরণ করব। ঘোড়াঘাট উপজেলাতে মোট ৮টি ডিলার রয়েছে। তাদের মাধ্যমেই খাদ্যবান্ধবের চালগুলো বিতরণ করা হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য