রংপুরের বাসা থেকে ডেকে নিয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীকে হত্যা করে লাশ ফেলে রেখে গেছে দুবৃর্ত্তরা। ঘটনাটি ঘটেছে বদরগজ্ঞ পৌর শহরের কলেজিয়েট স্কুল ও কলেজের ভেতর। নিহতের নাম শ্যামল চন্দ্র মহন্ত ওরফে নয়ন সে এসএসসি পরীক্ষার্থীকে।  বদরগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত আরিফ আলী লাশ উদ্ধারের তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও নিহত স্কুলছাত্রের স্বজনরা জানিয়েছেন, বদরগঞ্জ পৌর শহরের বটপাড়া এলাকার নারায়ণ চন্দ্র মহন্তের ছেলে নয়ন চলতি বছর কলেজিয়েট স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে বিজ্ঞান বিভাগে এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে নয়ন বাড়িতে অবস্থান করার সময় প্রতিবেশী জুলফিকার নামে এক যুবক তাকে কথা আছে বলে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর গভীর রাত পর্যন্ত তার আর কোনও সন্ধান পাওয়া যায়নি। স্বজনরা সারা রাত ধরে তাকে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও তার সন্ধান পাননি।

আজ শুক্রবার সকালে স্থানীয় লোকজন নয়নের লাশ রক্তাক্ত অবস্থায় কলেজিয়েট স্কুলের ভেতরে বারান্দায় পড়ে থাকতে দেখে তার স্বজনদের খবর দেয়। এলাকাবাসীর ধারণা, নয়নকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে এসে স্কুলের ভেতরে থাকা টিউবওয়েলের হাতল দিয়ে তার মাথায় আঘাত করে হত্যা করা হয়েছে।

নয়নের মা প্রমিলা রানী বলেন, ‘আমার ছেলেকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে।’ তিনি খুনিদের গ্রেফতার করে শাস্তি দাবি করেন।

এ ব্যাপারে শুক্রবার বেলা সাড়ে এগারটার দিকে বদরগঞ্জ থানায় যোগাযোগ করা হলে ওসি তদন্ত আরিফ আলী ফোন রিসিভ করে সাংবাদিক পরিচয় শুনে ধমক দিয়ে বলেন, ‘নয়নকে হত্যা করা হয়েছে কে বলেছে? আমরা দেখছি কীভাবে ঘটনাটি ঘটলো। আর নিহত নয়নের স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে ঘটনাটি জানার চেষ্টা করছি।’ বলেই ফোন রেখে দেন তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য