নীলফামারীর ডিমলায় করোনা ঝুকির মাঝেও চিকিৎসা সেবা প্রদান করে পেশাগত দায়িত্ব পালন করছেন সরকারী হাসপাতাল কতৃপক্ষ।

করোনা ভাইরাসের শুরুতে উপজেলার প্রাইভেট চেম্বারের চিকিৎসকগণ কৌশলে নিজের অসুস্থ্যতার কারন দেখিয়ে চেম্বারে সাইন বোর্ড টানিয়ে দিয়ে পালিয়ে গেলেও। সরকারী হাসপাতালের ডাক্তাররা তাদের পেশাগত দায়িত্বের কথা ভেবে সরকারী নির্দেশনা মেনে কর্মস্থলে উপস্থিত থেকে রোগীদের চিকিৎসা সেবা প্রদান করে আসছে।

এ উপজেলায় পরপর ২জন করোনা রোগী শনাক্ত হয় হাসপাতাল কতৃপক্ষ আক্রান্ত রোগীদের উদ্ধার করে নীলফামারী সদর হাসপাতালের আইসলোশনে প্রেরন করেন। এছাড়া প্রতিদিন জীবনের ঝুকি নিয়ে করোনায় আক্রান্ত হতে পারে এমন ব্যক্তিদের বাড়ী বাড়ী গিয়ে সমুনা সংগ্রহ করছেন তারা।

উপজেলা স্বাস্থ্য কম্পেলেক্রের স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ সারোয়ার আলম বলেন, ডিমলা হাসপাতালে আবাসিক মেডিকেল অফিসার, ডেন্টাল সার্জন, ইউএইচ এফ পিও সহ মোট ১৩ জন ডাঃ কর্মরত রয়েছেন। আমরা সরকারী নির্দেশনা মেনে হাসপাতালে আসা রোগীদের নিয়মিত সেবা প্রদান করে আসছি। এবং বর্তমান পরিস্থিতির কারনে সকলের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। করোনা ভাইরাসের কারনে প্রথম দিকে ভর্তি ও বর্হিবিভাগে রোগীর সংখ্যা কমে গেলেও দিনদিন তা বাড়ছে।

হাসপাতালের আরএমও ডাঃ নিরঞ্জন কুমার রায় বলেন, বৃহঃবার পয্যন্ত উপজেলার মোট ৩৭ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে এবং প্রতিদিন নমুনা সংগ্রহ অব্যাহত রয়েছে। বৃহঃবার হাসপাতালের বর্হিবিভাগে চিকিৎসা নিতে আসা রোগরি সংখ্যা ৫৪ এবং ভর্তি রোগী সংখ্যা ৬ জন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য