ঘরে করোনাভাইরাস ঢুকে পড়া ঠেকাতে কি পদক্ষেপ নিচ্ছেন?

নিউ দিল্লির ফোর্টিস মেমোরিয়াল রিসার্চ ইনস্টিটিউট’য়ের পরিচালক ও ‘নিউরোলজি’ বিভাগের প্রধান পারভিন গুপ্তা জানাচ্ছেন ঘর সুরক্ষিত রাখার কিছু উপায়।

ঘরের প্রতিটি অংশ নিয়মিত সাবান কিংবা অন্যান্য জীবানুনাশক উপাদান দিয়ে নিয়মিত পরিষ্কার করতে হবে। বিশেষ করে প্রতিবার রান্না করার পর রান্নাঘর পরিষ্কার করাতে হবে। ঘরে পরা আর বাইরে পরার জুতা আলাদা হতে হবে এবং কোনো অবস্থাতেই বাইরে পরা জুতা ঘরের ভেতরে নেওয়া যাবে না।

লাইটের সুইচ, টেবিল, কম্পিউটারের কিবোর্ড, দরজার হাতল, শৌচাগার, আলরামি, ওয়্যারড্রব ইত্যাদিও পরিষ্কার করতে হবে রুটিন করে। এই পরিষ্কার করার সময় গ্লাভস ব্যবহার করতে হবে এবং কাজ শেষে গ্লাভসগুলো ঢাকনাসহ ডাস্টবিনে ফেলতে হবে, খালি হাতে কোনো কিছু স্পর্শ করা যাবে না।

বাইরে থেকে সদাই কিনে আনার পর ব্যাগটি ভালোভাবে পরিষ্কার করতে হবে। তৎক্ষণাত পরিষ্কার করা সম্ভব না হলে প্রয়োজনে ব্যাগটিকে ঘরের বাইরে ফেলে রাখুন ২৪ থেকে ৪৮ ঘন্টা।

যে সদাই কিনে আনলেন তা ‘পটাশিয়াম পারম্যাঙ্গানেট’য়ের দ্রবনে পরিষ্কার করতে হবে। এই রাসায়নিক উপাদানটি পাওয়া না গেলে পাঁচ থেকে ১০ মিনিট গরম পানিতে ধুয়ে নিতে হবে।

খাবার কিনতে বাইরে গেলে অযথা বাজারে ঘুরে বেড়াবেন না এবং মানুষের যতোটা দূরে থাকা যাই ততই ভালো। ফিরে এসে ঘরের ঢোকার আগে জুতায় জীবানুনাশক স্প্রে করতে হবে, সম্ভব হলে কাপড়েও। জুতা বাইরে রেখে আসাই ভালো। ঘরে ঢুকে প্রথম কাজ হবে হাত ধোওয়া, সম্ভব হলে পরা কাপড় ধুয়ে একেবারে গোসল করে ফেলা। যাদের পোষা প্রানী আছে তাদের বাড়তি সাবধানতা মেনে চলতে হবে।

ইন্দ্রপ্রষ্ঠ অ্যাপোলো হাসপাতালের ‘রেস্পিরেটরি মেডিসিন’ বিভাগের পরামর্শদাতা রাজেশ চাওলা বলেন, “ঘর পরিষ্কার করতে ‘হাইড্রোক্লোরাইট’যুক্ত পরিষ্কারক দ্রব্য ব্যবহার করতে হবে। ব্লিচিং পাউডারও যথেষ্ট কার্যকরী। গরে অসুস্থ কেউ থাকলে তাকে নিরাপদ দুরত্বে রাখতে হবে। তার ব্যবহার্য জিনিষ আলাদা করতে হবে এবং তা পরিষ্কার করতে হবে আলাদাভাবে। এই সবগুলো কাজ করার সময় হাতে গ্লাভস ও মুখে মাস্ক পরা আবশ্যক। কাপড় ঘরে পরিষ্কার করাই ভালো হবে।”

নিউ দিল্লির শ্রী বালাজি অ্যাকশন মেডিকাল ইনস্টিটিউট’য়ের ‘ইন্টারনাল মেডিসিন’য়ের বিভাগীয় প্রধান ডা. সুধিশ সেহরা বলেন, “নিজের হাত পরিষ্কার রাখার পাশাপাশি আশেপাশে পরিবেশ ও নিত্য ব্যবহার্য অনুষঙ্গ পরিষ্কার রাখা সমান গুরুত্বপূর্ণ। প্রথমেই মাস্ক ও গ্লাভস পরে ধুলা পরিষ্কার করে নিতে হবে। এরপর জীবানুনাশক প্রয়োগ করে কিছুক্ষণ রেখে তা মুছে নিতে হবে।”

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য