লকডাউনের দিনগুলোয় ওলটপালট হয়ে গেছে গোটা জীবনটাই। একটা ধরাবাঁধা বন্দি জীবন কাটাতে হচ্ছে শুধু নয়, তার সঙ্গে রয়েছে পাহাড়প্রমাণ মানসিক চাপ। অনেকেই প্রিয়জনের থেকে দূরে রয়েছেন, আবার অনেককেই ঘরের কাজ আর অফিসের কাজ সামলাতে হচ্ছে সমানতালে। কিন্তু দিনের পর দিন এই চাপ সামলাতে গিয়ে তার প্রভাব পড়ছে শরীরের উপরেও আর তার প্রথম বলি হচ্ছে চুল। মানসিক চাপ বা স্ট্রেসের কারণে চুল উঠে যাচ্ছে গোছা গোছা। বিশেষজ্ঞদের মতে মানসিক চাপ চুল উঠে যাওয়ার অন্যতম কারণ। তাই চুল ওঠা কমাতে চাইলে সবার আগে মনকে রাখতে হবে চাপমুক্ত, ভারহীন।

স্ট্রেসজনিত কারণে চুল ওঠে কেন?
মানসিক চাপ বা উৎকণ্ঠা তৈরি হলেই শরীরের প্রতিটি অঙ্গের উপর চাপ পড়ে, বলছেন ট্রাইকোলজিস্ট ডক্টর জিৎ গোরে। কিন্তু শরীরের বাঁচার জন্য ফুসফুস, মস্তিষ্ক, কিডনির মতো অঙ্গ যতটা জরুরি, চুল তার ছিটেফোঁটাও নয়। তাই প্রচণ্ড মানসিক চাপ তৈরি হলে শরীরে উৎপাদিত বেশিরভাগ পুষ্টি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গগুলিতে সঞ্চারিত হয়, আর চুল ক্রমশ বিবর্ণ, নিষ্প্রাণ হয়ে পড়ে। তা ছাড়া প্রবল স্ট্রেস থাকলে তার মোকাবিলা করার জন্য শরীর কর্টিসল নামে একটি হরমোন বেশি বেশি করে তৈরি করতে শুরু করে, ফলে চুলের বাড়বৃদ্ধির জন্য জরুরি হরমোন ততটা তৈরি হয় না। ফলে চুল উঠতে শুরু করে। সময়মতো ব্যবস্থা না নিলে চুলের স্বাস্থ্যের অপূরণীয় ক্ষতিও হয়ে যেতে পারে।

কীভাবে মুক্তি পাবেন স্ট্রেসের কারণে চুল ওঠা থেকে?
এর মূল উত্তর একটাই, মানসিক চাপ আপনাকে কমাতেই হবে। যদি সাম্প্রতিক লকডাউন পরিস্থিতি, করোনা ভাইরাসের কারণে আপনি চাপের শিকার হয়ে থাকেন, তা হলে নিজেকে বোঝান আপনি একা নন, গোটা পৃথিবী এই পরিস্থিতির শিকার এবং এই দুঃসময় একদিন কাটবেই! সেই সব মানুষদের কথা ভাবুন যাঁরা আপনার চেয়েও খারাপ অবস্থায় আছেন। মনে ইতিবাচক চিন্তা আনুন, ধীরে ধীরে মন হালকা হবে।

প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খান
মুসুর ডাল, চিকেন, মাছ বা ডিমের যে কোনও একটি প্রতিদিন ডায়েটে রাখুন। রাজমা, ছোলা, ছাতুর মতো খাবারও খুব পুষ্টিকর।

ভেজা চুল আঁচড়াবেন না
স্নানের পর চুল ভালো করে শুকিয়ে নিন, তারপর চিরুনি চালান।

হেয়ার ড্রায়ার বাদ দিন
যেহেতু এখন বাইরে বেরনোর দরকার নেই, তাই তাড়াহুড়ো করে চুল শুকোনোরও দরকার নেই। তোয়ালে দিয়ে চেপে চেপে ভেজা চুল মুছে নিন, তারপর পাখার হাওয়ায় বা স্বাভাবিক হাওয়ায় শুকোন।

অয়েল মাসাজ করুন
নারকেল তেল বা আমলা তেল নিয়ে হালকা গরম করে চুলের গোড়ায় গোড়ায় ঘষে ঘষে মাখুন। তাতে চুলের গোড়ায় রক্ত সঞ্চালন হবে, চুল পুষ্টি পাবে।

মেথির প্যাক লাগাতে পারেন
একমুঠো মেথি জলে সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন। সকালে উঠে বেটে নিন। স্নানের আধঘণ্টা আগে মাথায় আর চুলে ভালোভাবে মেখে নিন, তারপর ঠান্ডা জলে ধুয়ে ফেলুন।

ভিটামিন কাজে লাগান
ভিটামিন ই চুলের পক্ষে খুবই উপকারী। চুলের গোড়া উজ্জীবিত করতে পারে ভিটামিন ই। একটা ক্যাপসুল কেটে ভিতরের তরল তেলে বা হেয়ার প্যাকে মিশিয়ে মাখুন। চুল খুব শিগগিরই মজবুত আর ঝলমলে হয়ে উঠবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য