হাসপাতাল ভর্তি না নেওয়ায় সড়কে সন্তান প্রসব

রংপুর

গাইবান্ধা মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে ভর্তি না নেওয়ায় সড়কের উপরে ব্যাটারি চালিত ইজিবাইকের মধ্যে সন্তান প্রসব করেছেন এক প্রসূতি মা। গতকাল রাত ৮টার দিকে গাইবান্ধা মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র থেকে মাত্র ২০০ গজ দুরে শহরের মধ্যপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের সড়কে এ ঘটনা ঘটে।

প্রসূতি মা মিষ্টি আকতার (২০) গাইবান্ধা সদর উপজেলার লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের আব্দুর রশিদের স্ত্রী।

ওই প্রসূতির স্বামী আব্দুর রশিদ জানান, সোমবার সন্ধ্যায় বাড়ীতে মিষ্টি আকতারের প্রসব বেদনা উঠে। তখন মিষ্টি আকতারকে একটি ব্যাটারি চালিত ইজিবাইকযোগে গাইবান্ধা মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে নিয়ে আসেন।

এ সময় ওখানে দায়িত্বরত পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা তৌহিদা বেগম কোন পরীক্ষা না করেই তাকে অন্য কোন হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলেন। তারপরও তিনি এই প্রসূতিকে ভর্তি করে নিতে পরিদর্শিকা তৌহিদা বেগমকে একাধিকবার অনুরোধ করেন। কিন্তু তিনি কোন কর্ণপাত করেননি।

পরে নিরুপায় হয়ে অন্যত্র সেবা পাওয়ার উদ্দেশ্যে ওই ইজিবাইকযোগেই সেখান থেকে বেরিয়ে আসেন। এসময় মিষ্টি আকতার ব্যথায় চিৎকার করতে থাকেন। পথে গাইবান্ধা মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র থেকে মাত্র ২০০ গজ দুরে শহরের মধ্যপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের সড়কে ওই ইজিবাইকের ভিতরেই একটি ফুটফুটে নবজাতক (ছেলে) প্রসব করেন।

গাইবান্ধা পৌর সভার ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদ আহমেদ বলেন, এরপর প্রসূতি মায়ের প্রচুর রক্তক্ষরণ হতে থাকলে উৎসুক জনতা ক্ষিপ্ত হয়ে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র ঘেরাও করে। খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেন এবং এই প্রসূতি মাকে যথাযথ চিকিৎসা প্রদানের জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান। পরে কর্তৃপক্ষ তাকে ভর্তি করে নেন।

গাইবান্ধা মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের চিকিৎসক ডা. সেকেন্দার আলী জানান, বিষয়টি তদন্ত করে দায়িত্বরত পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অভিযুক্ত পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা তৌহিদা বেগম মোবাইল ফোনে জানান, তিনি কাগজপত্র দেখে রোগীর স্বাভাবিকভাবে সন্তান প্রসব সম্ভব নয় বলে ফিরিয়ে দেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য