ওয়ার্ক ফ্রম হোম শুনলে যতটা পুলক জাগে, বিষয়টির মধ্যে ঢুকলে সেই রোমান্টিসিজ়মটা ভেঙে যায় খুব তাড়াতাড়ি। বাড়ির হাজারো কাজের চাপ সামলানো, পরিবারের সকলের দেখভালের পাশাপাশি অফিসের টেনশন বইতে হলে মুশকিল। কাজে মন বসে না, সময় বেশি লাগে… দেখতে দেখতে শেষ হয়ে যায় এক একটি দিন। আর দিনের পর দিন নিজের প্রোডাক্টিভিটির সঙ্গে সমঝোতা করে চলতে কারই বা ভালো লাগে? এই পরিস্থিতি থেকে বেরোতে চাইলে আমাদের টিপসগুলি আপনার দারুণ কাজে আসবে।

মাল্টিটাস্কিং নয়, একবারে একটি কাজ শেষ করুন
আমরা যতই মাল্টিটাস্কিংয়ের গুণ গাই না কেন, আসলে একসঙ্গে অনেকগুলো কাজ আমাদের ব্রেনই প্রসেস করতে পারে না। তাই হাতে থাকা প্রতিটি কাজই সমান গুরুত্ব দিয়ে করার চেষ্টা করুন। একটি শেষ হলে তবেই একমাত্র পরেরটিতে হাত দিন। প্রজেক্ট ফাইল তৈরির সময় ফেসবুকে ঢুকবেন না, চলবে না হোয়াটসঅ্যাপ চেক করাও।

যা কিছু আপনার মনঃসংযোগে বিঘ্ন ঘটায়, তা থেকে দূরে থাকুন
যতক্ষণ অফিসের কাজ শেষ না হচ্ছে, ততক্ষণ পর্যন্ত অন্য কারও সঙ্গে আড্ডা জুড়বেন না। অনেক সময়ে দেখবেন, দিনের শুরুটা আমরা হচ্ছে-হবে করে কাটিয়ে দিই। শেষমেশ যখন কাজে বসি, তখন দিনের অনেকটাই গড়িয়ে গিয়েছে। ফলে কম সময়ে অনেক বেশি কাজ সারতে হয়। তেমনটা রোজ রোজ হতে দেবেন না।

প্রতিটি কাজের জন্য নির্দিষ্ট সময় বরাদ্দ রাখুন
কাজ যত ছোটই হোক না কেন, তা নির্দিষ্ট সময়ে শেষ করতেই হবে এমন একটা মানসিকতা তৈরি করে নিন। কাজ শেষ করে উপভোগ করুন অবসর। মনে রাখবেন, কাজের চাপ আপনাকে নিয়ন্ত্রণ করবে না, আপনিই তা মুঠোর মধ্যে রাখবেন।

মেডিটেশন করে দেখতে পারেন
প্রতিদিন ১০ মিনিট সময় বরাদ্দ রাখুন মেডিটেশন করার জন্য। তাতে ম্যাজিকের মতো ফল মিলবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য