আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধাঃ করোনা ভাইরাস সংক্রামিতদের জরুরী ভিত্তিতে চিকিৎসা সহায়তায় গাইবান্ধা জেলার ধানঘড়াস্থ আনসার ও ভিডিপি প্রশিক্ষণ সেন্টারে মাত্র তিনদিনে ১শ’ শয্যার মানসম্পন্ন একটি অস্থায়ী আইসোলেসন সেন্টার প্রস্তুুত করা হয়েছে। নদী ভাঙন কবলিত দরিদ্র পীড়িত সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের কথা চিন্তা করে করোনা ভাইরাসের এই দূর্যোগ মোকাবেলায় বিভিন্ন ধরণের সচেতনতামূলক কাজ করার পাশাপাশি তিনদিনে একটি উন্নতমানের আইসোলেসন সেন্টার প্রস্তত করে মানবিকতার এক অনন্য ভূমিকা রেখেছে জেলার অন্যতম স্বেচ্ছসেবী সংগঠন এসকেএস ফাউন্ডেশন।

উল্লেখ্য, জেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রন কমিটির উদ্যোগে ও এসকেএস ফাউন্ডেশনের নির্বাহী প্রধান রাসেল আহমেদ লিটনের নির্দেশনায় এবং সার্বিক ব্যবস্থাপনায় মাত্র ২৫ জন শ্রমিক ও এসকেএস ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারিরা মিলে রাত দিন খেঁটে মাত্র ৩ দিনেই আনসার ও ভিডিপির একটি ভবনে করোনা ভাইরাস সংক্রামিতদের চিকিৎসা সেবায় এই আইসোলেসন সেন্টারের সার্বিক কাজ সম্পন্ন করে।

এ বিষয়ে সংস্থাটির পাবলিক রিলেশন সমন্বয়কারী মো. আশরাফুল আলম জানান, অতি স্বল্প সময়ে প্রস্তুুতকৃত এই আইসোলেসন সেন্টারে রোগী এবং ডাক্তারের আবাসন ব্যবস্থা, খাদ্য সরবরাহ, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা, অনুকুল পরিবেশ বজায়সহ যাবতীয় ব্যবস্থাপনা করবে এসকেএস ফাউন্ডেশন। অন্যদিকে ওষুধ এবং চিকিৎসক সহায়তা দিবে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় এবং সার্বক্ষনিক তদারকিতে থাকবে জেলা প্রশাসন ও জেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রন কমিটি।

জানা গেছে, শুক্রবার এই আইসোলেশন সেন্টার প্রস্তুুত করণের কাজ শেষ হয়েছে। এব্যাপারে সিভিল সার্জন ডাঃ এবিএম আবু হানিফ, ডাঃ আ.খ.ম. আসাদুজ্জামান, গাইবান্ধা প্রেসক্লাবের সভাপতি কে.এম রেজাউল হক, সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর সাবু, এসকেএস ফাউন্ডেশনের সোস্যাল বিজনেস এর সমন্বয়কারি আবু সাঈদ সুমন, পাবলিক রিলেশন এন্ড কমিউনিকেশনের সমন্বয়কারি মো. আশরাফুল আলম পরিদর্শন করেন। শনিবার জেলা প্রশাসন ও জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে এই আইসোলেসন সেন্টারটি আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য