ভারতের আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা নয়, প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মানার ফলেই করোনা মুক্ত হয়েছেন প্রিন্স চার্লস। শুক্রবার (৩ এপ্রিল) এমনটাই জানালেন প্রিন্স চার্লসের মুখপাত্র।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের স্বাস্থ্যবিভাগের প্রতিমন্ত্রী শ্রীপদ নায়েক জানান, আয়ুর্বেদ ও হোমিওপ্যাথির জোরেই সুস্থ হয়েছেন প্রিন্স চার্লস।

শুক্রবার দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে পাঠানো ইমেইলে প্রিন্স চার্লসের মুখপাত্র জানিয়েছেন, ভারতের দেয়া ওই তথ্য় ঠিক নয়। যুক্তরাজ্যের জাতীয় স্বাস্থ্য পরিষেবা অনুযায়ী চিকিৎসার ফলেই সুস্থ হয়ে উঠেছেন প্রিন্স অব ওয়েলস।

এ প্রসঙ্গে ভারতের কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী শ্রীপদ নায়েক বলেন, এই তথ্য় আমার নয়। সাংবাদিক বৈঠকের আগে আমি বেঙ্গালুরুতে ‘সৌক্য’ নামের একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্র যিনি চালান তার কাছ থেকে ফোন পাই। আমি তাকে বলেছিলাম যে আমি একথা বলতে পারব না কারণ আমার কাছে কোনও লিখিত নথি নেই। তিনি আমায় বলেছিলেন যে প্রিন্স চার্লস তার রোগী এবং তিনিই তাকে সুস্থ করে তুলেছেন।

ভারতের কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী শ্রীপদ নায়েক আরো জানিয়েছেন, আমি তাকে লিখিত নথি দিতে বলেছিলাম। উনি দেবেনও বলেছিলেন, কিন্তু তারপর আর ফোন করেননি।

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই জানা যায় যে প্রিন্স চার্লসের শরীরে করোনা ভাইরাস মিলেছে। তবে ইতিমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন তিনি । প্রিন্স চার্লসের স্ত্রী ক্য়ামিলাকেও আইসোলেশনে রাখা হয়েছে বলে জানা গিয়েছিল। যদিও তার শরীরে প্রাণঘাতী ভাইরাসটি মেলেনি। এনডিটিভি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য