পঞ্চগড় রেলস্টেশনে এক নারী সাত দিন ধরে আটকা পড়ে থাকলেও করোনাভাইরাস আতঙ্কে কেউ তার কাছে যায়নি।

তবে ৪২ বছর বয়সী এই নারী জ্বর-সর্দি-কাশিতে ভুগলেও তার শরীরে করোনাভাইরাস সংক্রমণের উপসর্গ পাননি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।

গতকাল রাতে পুলিশ খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

সদর থানার ওসি আবু আক্কাস আহমদ বলেন, এই নারী পারিবারিক কলহের জেরে দিনাজপুর সদর থেকে গত ২৪ মার্চ ট্রেনে পঞ্চগড় আসেন। তারপর এক সপ্তাহ ধরে তিনি রেলস্টেশন ও তার আশপাশে ছিলেন।

“তিনি জ্বর-সর্দি-কাশিতে আক্রান্ত হয়েছেন। এ কারণে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ভয়ে কেউ তার কাছে যায়নি। ফলে খেয়ে-না-খেয়ে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।”

তবে ওই নারী পঞ্চগড় রেলেস্টেশনে নেমে সেখান থেকে কোথায় যেতে চেয়েছিলেন, সে সম্পর্কে পুলিশ কিছু বলতে পারেনি। এ অবস্থা গতকাল রাতে পুলিশ স্থানীয়দের কাছে খবর পায়।

ওসি আক্কাস বলেন, লোকজনের মাধ্যমে পুলিশ সুপার ইউসুফ আলী খবর পান। তার নির্দেশে দ্রুত ওই নারীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি কিছুটা সুস্থ হয়েছেন।

স্বজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাকে বাড়ি পাঠানোর চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানান।

সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক সিরাজউদ্দৌলা পলিন বলেন, “বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা তাকে দেখেছেন। তারা তার শরীরে করোনাভাইরাস সংক্রমণের কোনো উপসর্গ পাননি। টানা কয়েক দিন বাড়ির বাইরে ও খোলা আকাশের নিচে থাকায় তার জ্বর ও সর্দি হয়। চিকিৎসা পেয়ে বর্তমানে তিনি অনেকটা সুস্থ আছেন। এর পরও তাকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

পুলিশ সুপার ইউসুফ আলী বলেন, বিপদাপন্ন মানুষের পাশে দাঁড়ানো পুলিশের নিয়মিত দায়িত্বের অংশ। তারা সেটাই করেছেন। এটা অন্যদেরও অনুসরণ করা দরকার।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য