করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সারা দেশে সতর্কতা জারি করে ১০ দিনের সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

সরকারি ঘোষণা অনুযায়ী, সবাই করোনার সংক্রমণ এড়াতে মুখে মাস্ক পরছেন ও হাত পরিষ্কার রাখার জন্য স্যানিটাইজার বা সাবান ব্যবহার করছেন। তবে ঘরবাড়িকেও তো জীবাণুমুক্ত রাখা জরুরি।

ঘরে কোনও ব্যক্তি অসুস্থ থাকলে এবং তার কাশি ও হাঁচিজনিত সমস্যা থাকলে অন্যরা তার দ্বারা সংক্রামিত হতে পারেন। কাশি ও হাঁচি দেয়ার সময় যদি তিনি মুখ না ঢাকেন, তবে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা দ্বিগুণ হয়ে যায়।

তাই ঘর জীবাণুমুক্ত করা জরুরি। আসুন জেনে নিই যেভাবে ঘর জীবাণুমুক্ত করবেন-

১. ঘরে জীবাণুমুক্ত করতে ফিনাইল এবং লিকুইড ব্লিচ (সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইট) ব্যবহার করতে পারেন। এ ছাড়া কিছুটা ব্লিচে পরিমাণ মতো পানি দিয়ে দুই থেকে চার মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর গ্লাভস পরে যে জায়গাটি পরিষ্কার করতে চান, সেখানে এটি ছড়িয়ে দিন। ১৫ মিনিট পর কাপড়ের সাহায্যে জায়গাটি পরিষ্কার করুন।

২. রান্নাঘরের থালা বাসন গরম পানি ব্যবহার করে পরিষ্কার করতে হবে। এ ছাড়া রান্নার সময় ব্যবহৃত কাপড় গরম পানিতে পরিষ্কার করা উচিত।

৩. বাড়িতে অসুস্থ ব্যক্তির কাপড় আলাদা করে ধোবেন। কাপড় ধুয়ে ডেটল পানিতে ভিজিয়ে তার পর তা শুকাতে পারেন।

৪. ঘরের পরিষ্কার করার আগে মুখ, হাত ও মাথা ঢেকে নিন। পরিষ্কার করার সময় আপনার চোখ, নাক ও মুখে স্পর্শ করা এড়িয়ে চলুন। কাজ শেষে সাবান দিয়ে ভালো করে হাত ধুয়ে ফেলুন।

৫. স্টেনলেস স্টিলের গ্যাজেট যত্নে না রাখলে তাতে জং পড়ে যেতে পারে৷ প্রতিদিন ব্যবহারের পর শুকনো কাপড়ে গ্যাজেট মুছে নিন৷ যদি জং পড়েই যায়, তা হলে হার্ডওয়্যার স্টোর থেকে ঝামাপাথরের গুঁড়ো কিনে এনে একটা কাপড়ে সেই গুঁড়ো নিন৷ তার পর সেটা দিয়ে ঘষে ঘষে মুছেন ফেলুন জং পড়া জায়গাগুলো৷ তার পর থেকে নিয়মিত পরিষ্কার রাখবেন৷

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য