দিনাজপুর সংবাদাতাঃ কোরনা সতর্কতায় পুর্বের তুলোনায় মাক্স ব্যাবহার ও চাহিদা বেড়েছে দ্বিগুন। এ কারনে মাক্স বিক্রি বেড়েছে,পৌর শহরের মোড়ে মোড়ে পরশা বসিয়ে দিয়েছে অনেকেই মাক্সের দোকান।

দিনাজপুর ফুলবাড়ীতে করোনা ভাইরাস সংক্রমন থেকে রক্ষা পেতে সামাজিক যোগাযোগ এড়াতে জনসমাগম এড়িয়ে চলতে গত ২৬মার্চ থেকে শুরু হওয়া নানামুখি তৎপরতা চালাচ্ছেন সেনাবাহিনী,থানা পুলিশসহ আইন প্রয়োগকারি সংস্থার লোকেরা।

এ অবস্থায় নিজ ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় পৌর শহরের নিমতলা মোড়,ননি গোপাল মোড়,টিটির মোড়,কালীবাড়ী বাজরসহ বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে জীবন-জীবিকার তাগিদে ব্যাবসা বদলে মাক্স এর দোকান দিয়ে বসেছেন অনেক ব্যাবসায়ীরা।

ফুলবাড়ী শহর ঘুরে দেখা যায় করোনা প্রাদুর্ভাবে সতর্কতা হিসাবে দোকানপাট বন্ধ রয়েছে । যাত্রী পরিবহন যানবাহনসহ জন চলাচল নিরুৎসাহিত করতে রাস্তায় রাস্তায় অভিযান চালাচ্ছেন প্রশাসন।

এতে ঘরে ফিরতে বাধ্য হচ্ছেন অতি প্রয়োজন ছাড়া বাড়ীর বাইরে ঘুরে বেড়ানো মানুষেরা। টহল দেওয়ার পাশাপাশি করোনার ভয়াবহতা সম্পর্কে হ্যান্ড মাইকে প্রচারনা চালাচ্ছেন সেনা সদস্যরা।

তবে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের বেচা-কেনা যেমন ঔষধের দোকান, খাবারের দোকান, কাচাঁবাজার, মুদিখানা ছাড়া সকল দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। এ কারনে অনেকের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ দোকান বন্ধ হওয়ায় কর্মহীন হয়ে পড়েছে অনেকে। সে কারনে তাদের অনেকেই ব্যাবসা বদলে জীবিকার তাগিদে মোড়ে মোড়ে মাক্সের দোকান দিয়ে বসেছেন।

ফুলবাড়ী বাজারের বাধঁন কসমেটিক এর সত্বাধিকারী নুর আলম, কসমেটিক ব্যাবসায়ী সেকেন্দার, ছাতা ব্যাবসায়ী এনামুলসহ আরো একাধিক ব্যাবসায়ী বলেন,বর্তমান সময়ে কোরোনা সক্রমন থেকে নিজেকে রক্ষা করতে বেড়েছে মাক্সের ব্যাপক চাহিদা।

তাই তাদের পুর্বের মুল ব্যাবসা বন্ধ থাকায় তারা মাক্সের দোকান দিয়েছেন। এতে প্রতিদিন মাক্স বিক্রি করে কিছু আয় হচ্ছে তা দিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছেন তারা।

কম্পিউটার মেকানিক রায়হান বলেন তিনি কম্পিউটারের হার্ডওয়ারের কাজ করেন কিন্তু বর্তমানে তা বন্ধ থাকার করনে তিনিও মাক্সের দোকান দিয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য