দিনাজপুর সংবাদাতাঃ করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ এড়াতে গত ২৪ ঘণ্টায় দিনাজপুরে নতুন করে আরও ৩৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

অপরদিকে, করোনাভাইরাস সন্দেহে মঙ্গলবার দুপুরে দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অ্যাসিস্ট্যান্টকে আইসোলেশনে ভর্তি করা হয়েছে এবং তার পরিবারকেও হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এর আগে সোমবার দুপুরে আট বছরের এক শিশুকে করোনা ভাইরাসের সন্দেহে আইসোলেশনে ভর্তি করানো হয়।

মঙ্গলবার বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মো. সোলায়মান মেহেদী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডা. আবদুল কুদ্দুস জানান, সোমবার সকাল ৮টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত জেলায় নতুন করে ২৪ ঘণ্টায় ৩৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। ইতোমধ্যে ১৬৯ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়।

তিনি আরও জানান, দিনাজপুর এম আবদুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জন্য ১৭৬সেট, ২৫০শয্যার দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালে ১০০সেট, সিভিল সার্জন কার্যালয়ে ১০০ সেট এবং জেলার ১৩টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মধ্যে ২৫৪ সেট ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) বিতরণ করা হয়েছে।

এদিকে, বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মো. সোলায়মান মেহেদী বলেন, মঙ্গলবার দুপুরে ওই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অ্যাসিস্ট্যান হঠাৎ গলা ব্যাথা, জ¦র, সর্দি, শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে আইসোলেশনে ভর্তি করানো হয়। এর আগে ওই শিশুটিও একই রকম অসুস্থতা নিয়ে আইসোলেশনে ভর্তি হয়। এ নিয়ে বিরামপুরে শিশুসহ দুইজন আইসোলেশনে ভর্তি হলেন।এছাড়াও বিরামপুর উপজেলায় সর্বমোট ২৬জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন।

তিনি বলেন, আইসোলেশনে থাকা দুই রোগীর নমুনা সংগ্রহ করে রোগতত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান-আইইডিআর বিভাগে পাঠানো হবে বলেও তিনি বলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য