আজ মঙ্গলবার সকালে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মহিমাগঞ্জে একটি ইটভাটার পাশ থেকে পলাশ দাস নামের এক ট্রিলারের চালকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শার্ট-প্যান্ট পরিহিত এবং নাক-মুখে রক্ত বের হওয়া মৃত ট্রলি চালক মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের কুমিড়াডাঙ্গা শেরপুর জেলেপাড়া গ্রামের সুনীল দাসের পুত্র।

এলাকার একটি ইটভাটার পাশে মৃতদেহটি দেখতে পেয়ে লোকজন ইউপি চেয়ারম্যানকে খবর দেয়। পরে স্বজনরা এসে মৃতদেহের পরিচয় নিশ্চিত করেন।

মৃতের স্বজনরা জানান, গতকাল সোমবার পলাশ তার পাওয়ার ট্রিলারের চাকা কিনতে বগুড়ায় যায়। বিকেলে সেখান থেকে ফিরে ট্রিলারের চাকা লাগিয়ে নিয়ে ভাড়া খাটতে যায়। এরপর আর তার কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি। এমনকি তার মোবাইল ফোনও বন্ধ ছিল।

আজ মঙ্গলবার সকালে বাড়ি থেকে প্রায় আধা কিলোমিটার দূরে একই গ্রামের একটি ইটভাটার কাছে তার মৃতদেহ পাওয়া যায়। তাকে কে বা কারা শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে বলে স্বজনরা অভিযোগ করেছেন।

গোবিন্দগঞ্জ থানার পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছে।

গোবিন্দগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম মেহেদী হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ ব্যাপারে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য