কুড়িগ্রামের রাজারহাটে মাদকের টাকা না পেয়ে নিজের গর্ভধারিনী মাকে কুঠার দিয়ে আঘাত করে খুন করেছে তারই মাদকাসক্ত পুত্র। এ লোমহর্ষক ঘটনাটি ঘটেছে, ২০মার্চ শুক্রবার দুপুরে উপজেলার উমর মজিদ ইউনিয়নের উমর পান্থাবাড়ী সাতভিটা গ্রামে।

পুলিশ ও এলাকবাসী জানান, ২০মার্চ শুক্রবার ওই গ্রামের সোলায়মান আলীর প্রথম স্ত্রী মিনু বেগম(৬০) এর নিকট তার পুত্র মনতাজুল ইসলাম(৩৫) মাদক কেনার জন্য কিছু টাকা চায়। মাদকের টাকা দিতে অস্বীকার করলে ওই দিন দুপুরে জোহরের নামাজ আদায় করার সময় ঘরে রাখা কুঠার দিয়ে নামাজ আদায়রত তার মাকে গলাসহ কয়েক জায়গায় আঘাত করে। এ সময় প্রচুর রক্তক্ষরণে মিনু বেগম গুরতর আহত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে।

শব্দ শুনে প্রতিবেশী মোখছেদুল ইসলামের স্ত্রী মুন্নী বেগম ছুটে আসলে ঘাতক মনতাজুল পালানোর চেষ্টা করে। কিন্তু মিনু বেগমের রক্তাক্ত নিথর দেহ দেখে চিৎকার দিলে এলাকাবাসীরা ছুটে এসে ঘাতককে আটক করে।

খবর পেয়ে রাজারহাট থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ কৃষ্ণ কুমার সরকার ও ওসি তদন্ত পবিত্র কুমার রায়ের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়না তদন্তের জন্য কুড়িগ্রাম প্রেরণ করে।

এ সময় এলাকাবাসীরা ঘাতক মাদকাসক্ত মনতাজুল ইসলামকে পুলিশে সোপর্দ করে। এ ঘটনায় রাজারহাট থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে। রাজারহাট থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ কৃষ্ণ কুমার সরকার খুনের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মাদকাসক্ত মায়ের খুনিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য