আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধাঃ গাইবান্ধা-৩ (সাদুল্যাপুর-পলাশবাড়ি) আসনের উপ-নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী অধ্যাপক ডাঃ সৈয়দ মইনুল হাসান সাদিক (ধানের শীষ) মঙ্গলবার গাইবান্ধা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে উন্নত ও অগ্রগামী পলাশবাড়ি-সাদুল্যাপুর গঠনের লক্ষ্যে ১৮ দফা এক নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে অধ্যাপক ডাঃ সৈয়দ মইনুল হাসান সাদিক তার লিখিত বক্তব্যে ১৮ দফা ইশতেহারে উল্লেখ করেন তিনি ভোটে নির্বাচিত হলে তার নির্বাচনী দুটি উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নের রাস্তা-ঘাটের উন্নয়ন, সাদুল্যাপুরে পৌরসভা গঠন, সন্ত্রাসী অপতৎপরতা, মাদকাসক্তি ও বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ, রাজনৈতিক সহিংসতা, প্রতিহিংসার রাজনীতি ও রাজনৈতিক হয়রানী বন্ধের মাধ্যমে স্বাধীনতার মূল ভিত্তি সাম্য, সামাজিক ন্যায় বিচার ও মানবিক মর্যাদা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ও উন্নয়নে কার্যকর ভূমিকা রাখবেন।

এছাড়াও তার ইশতেহারে উল্লেখ করা হয়, তিনি নির্বাচিত হলে কৃষকদের সর্বপ্রকার কৃষি উপকরণ সহজলভ্য ও স্বল্প মূল্য নির্ধারণ, সেচ সুবিধা সম্প্রসারণ, স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়ন সাধন, বেকার যুবকদের জন্য কর্মসংস্থান নিশ্চিত করা, দুই উপজেলায় ইকোনোমিক জোন প্রতিষ্ঠা, মডেল মসজিদ-মন্দির, ঈদগাহ সহ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন সাধন, খাল খননের মাধ্যমে জলাবদ্ধতা নিরসন, দুটি উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন নিশ্চিত করা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন ও দুটি উপজেলার সরকারি কলেজগুলোতে সকল বিষয়ে অনার্স কোর্স চালুসহ নানা উন্নয়নমূলক কাজে বিস্তারিত বিবরণ উল্লেখ করেন।

তিনি তার আরও বক্তব্যে বলেন, জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার ফিরিয়ে আনা, এলাকার সার্বিক উন্নয়ন এবং জণকল্যাণে ভূমিকা রাখাসহ তিন বারের সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রী বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির লক্ষ্যে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এজন্যে দুটি উপজেলার সর্বস্তরের ভোটারদের ধানের শীষ মার্কায় ভোট দিয়ে তাকে নির্বাচনে বিজয়ী করার উদাত্ত আহবান জানান।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন বিএনপি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির গ্রাম সরকার বিষয়ক সম্পাদক আনিসুজ্জামান খান বাবু, বিএনপি রংপুর বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আব্দুল খালেক, সাবেক এমপি সাইফুল ইসলাম সাজা, গাইবান্ধা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাহমুদন্নবী টিটুল, সিনিয়র সহ-সভাপতি খন্দকার আহাদ আহমেদ, সহ-সভাপতি শহীদুজ্জামান শহীদ, ছামছুল হাসান ছামছুল, যুগ্ম সম্পাদক মো. ইলিয়া হোসেন, উপদেষ্টা খন্দকার ওমর ফারুক সেলু, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. মঞ্জুর মোর্শেদ বাবু, সাদুল্যাপুর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম মিয়া, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. হানিফ বেলাল, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক ভুটটু, জেলা যুবদল সভাপতি রাগিব হাসান চৌধুরী, জেলা তাঁতী দলের আহবায়ক এবিএম রাশেদুজ্জামান লিটন, জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান সেলিম, আনোয়ারুল ইসলাম শাহান, রবিউল হাসান সবুজ, এবিএম সাইদুর রহমান রয়েল, আলতাব হোসেন মামুন, এসএম কামাল হোসেন, মো. শাহেদ মিয়া, মো. জাহিদ হাসান বিপ্লব, খন্দকার আল আমিন, ড. মিজানুর রহমান মাছুম, শহিদুজ্জামান শাহীন, মিরুজ্জামান রবিন, ইমতিয়াজ আহমেদ রনি, ইসমাইল হোসেন জীবন, নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ২৭ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য ডা. ইউনুস আলী সরকার মৃত্যুবরণ করায় নির্বাচন কমিশনার এ আসনটি শূন্য ঘোষণা করেন। এবার সাদুল্যাপুরে ১১টি, পলাশবাড়ি পৌরসভাসহ এ উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে মোট ৪ লাখ ৩৫ হাজার ২১১ জন ভোটার রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য